অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

'বিশ্ব শান্তির' জন্য উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে কাজ করতে ইচ্ছুক চীন, বলছে চীনের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম


চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং ব্যাংককে এপেক অর্থনৈতিক নেতাদের বৈঠকে যোগ দিতে পৌঁছেছেন। এপেক শীর্ষ সম্মেলন, ১৯ নভেম্বর, ২০২২।

চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনকে বলেছেন, বেইজিং বিশ্ব শান্তির জন্য পিয়ংইয়ংয়ের সঙ্গে কাজ করতে ইচ্ছুক।

উত্তর কোরিয়া তার সবচেয়ে শক্তিশালী পরীক্ষাগুলির মধ্যে একটিতে আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করার কয়েক দিন পরে শি-র কাছ থেকে এই বার্তাটি আসে। তারা সেই সাথে ঘোষণা করেছিল যে তারা তাদের নিজস্ব পারমাণবিক অস্ত্রের মাধ্যমেই যুক্তরাষ্ট্রের পারমাণবিক হুমকির জবাব দেবে।

সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে উত্তর কোরিয়া ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপের নতুন রেকর্ড গড়েছে। সবার আশংকা, তারা সপ্তম পারমাণবিক পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে। উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের পর তারা আর কোনো পারমাণবিক অস্ত্র পরীক্ষা পরিচালনা করেনি।

কিমকে পাঠানো এক বার্তায় শি বলেন, "এই অঞ্চল ও বিশ্বের শান্তি, স্থিতিশীলতা, উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির জন্য বেইজিং উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে কাজ করতে প্রস্তুত।" পিয়ংইয়ংয়ের সরকারি কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সি (কেসিএনএ) এ খবর জানিয়েছে।

উত্তর কোরিয়ার আইসিবিএম উৎক্ষেপণের কয়েক দিন আগে শি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সাথে বালিতে গ্রুপ অফ ২০-র শীর্ষ সম্মেলনের ফাঁকে দেখা করেন। বাইডেন আস্থা প্রকাশ করেছিলেন যে বেইজিং পিয়ংইয়ং-এর আরও সামরিক ব্যাপ্তি দেখতে চায় না।

ওয়াশিংটন বলেছে, তারা চায় পিয়ংইয়ংয়ের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মিত্র ও অর্থনৈতিক পৃষ্ঠপোষক চীন, উত্তর কোরিয়ায় লাগাম টানতে সহায়তাস্বরুপ তার প্রভাব ব্যবহার করুক।

১৮ নভেম্বরের ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণটি পিয়ংইয়ংয়ের নতুন আইসিবিএম বলে মনে করা হচ্ছে। যার সম্ভাব্য পরিসীমা যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূখণ্ডে আঘাত হানতে পারে।

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ এই উৎক্ষেপণ নিয়ে একটি উন্মুক্ত বৈঠক ডেকেছে। সেখানে যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, ফ্রান্স ও ভারত সহ ১৪টি দেশ পিয়ংইয়ংয়ের কর্মকাণ্ডের "তীব্র নিন্দা" জানাবে।

তবে একজন পশ্চিমা কূটনীতিক এএফপিকে বলেছেন, চীন ও রাশিয়া সোমবারের বিবৃতিতে তাদের নাম না রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

গত মে মাসে চীন ও রাশিয়া উত্তর কোরিয়ার ওপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞা আরও কঠোর করার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন প্রচেষ্টাকে ভেটো দেয়।

পিয়ংইয়ং পারমাণবিক ও ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের কারণে একাধিক আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞার অধীনে রয়েছে।

XS
SM
MD
LG