অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

অর্থায়নের অপ্রতুলতা এবং পিতৃতন্ত্র নাইজেরিয়ায় পরিবার পরিকল্পনার অন্তরায়


২০১৯ সালের ১৫ আগস্ট লাগোসে ক্রেতাদের ভিড়। নাইজেরিয়াসহ বিশ্বব্যাপী ৮টি দেশে আগামী ৩ দশকে বিশ্বব্যাপী জনসংখ্যা বৃদ্ধির অর্ধেকের বেশি হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ফাইল ছবি।

২০২০ সালে আয়েশা আলি এবং তার স্বামী সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন যে, ৯টি সন্তান হওয়ার পর তিনি জন্মনিয়ন্ত্রণ ইঞ্জেকশন নেবেন।

আলী বলেন, আর্থিক সংকটের কারণে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

আলীর মতো অনেক নাইজেরিয়ান নারী, বিশেষ করে গ্রামীণ এলাকায়, নারী প্রতি শিশু জন্মের হার ৫টির বেশি হয়ে থাকে।

জাতিসংঘের জনসংখ্যা তহবিল (ইউএনএফপিএ) নাইজেরিয়ায় পরিবার পরিকল্পনা ব্যবস্থা গ্রহণকে প্রভাবিত করার প্রধান কারণ হিসেবে পরিবার পরিকল্পনার ভোগ্য সামগ্রী সংগ্রহের জন্য স্বল্প অর্থায়ন, সাংস্কৃতিক পক্ষপাত এবং তথাকথিত “পুরুষের আধিপত্য”কে চিহ্নিত করেছে।

এই মাসের শুরুতে বিশ্ব জনসংখ্যা ৮শ কোটির মাইলফলক ছুঁয়েছে। জাতিসংঘের কর্মকর্তারা জনসংখ্যা বৃদ্ধিকে চিকিৎসা ও জনস্বাস্থ্যের উন্নতির কারণে মৃত্যুহার হ্রাসের ফলাফল হিসেবে অভিহিত করেছেন।

বিশ্বব্যাপী ৮টি দেশে আগামী ৩ দশকে বিশ্ব জনসংখ্যার অর্ধেকের বেশি হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এগুলোর মধ্যে নাইজেরিয়াসহ ৫টি দেশ আফ্রিকায় অবস্থিত।

বিশ্বব্যাংকের ২০২২ সালের তথ্য অনুসারে, নাইজেরিয়া ইতোমধ্যেই বিশ্বের সপ্তম বৃহত্তম দেশের জনসংখ্যা এবং দেশটির সাড়ে ৯ কোটি মানুষের দৈনিক মাথাপিছু আয় ২ দশমিক ১৫ ডলারের নিচে।

এই বছরের ফেব্রুয়ারিতে নাইজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুহাম্মদু বুহারি উচ্চ প্রজনন হার নিয়ন্ত্রণ এবং আধুনিক পরিবার পরিকল্পনা সরঞ্জামগুলোর সরবরাহ উন্নত করার জন্য একটি জাতীয় জনসংখ্যা নীতি চালু করেছিলেন।

স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা বলছেন, পরিবার পরিকল্পনার ঘাটতি মোকাবিলায় নাইজেরিয়াকে প্রতি বছর সাড়ে ৩ কোটি ডলার বিনিয়োগ করতে হবে কিন্তু পরবর্তী বছরের জাতীয় বাজেটের জন্য শুধুমাত্র ৫০ হাজার ডলার বরাদ্দ করা হয়েছে।

ডিসেম্বরে জাতীয় সংসদে বাজেট অনুমোদনের আগে সুশীল সমাজের গোষ্ঠীগুলো বরাদ্দ বাড়ানোর জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে আহ্বান জানাচ্ছে।

XS
SM
MD
LG