অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

রাঙামাটির সাজেকে দুর্বৃত্তের গুলিতে ১ জন নিহত—আহত ১


সাজেক, বাংলাদেশ

রাঙামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলায় সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের গুলিতে এক চাকমা যুবক নিহত হয়েছেন। এই ঘটনায় পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে আরও একজন যুবক আহত হয়েছেন। বুধবার (৩০ নভেম্বর) সকাল ৯টার দিকে উপজেলার সাজেক ইউনিয়নের নিউলংকর দাড়ি পাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

নিহত সুখেন চাকমা (২০) ওই এলাকার মঙ্গল চাকমার ছেলে এবং পেশায় মোটরসাইকেলচালক। আহত সজীব চাকমা (২২) ওই এলাকার বিধুমঙ্গল চাকমার ছেলে এবং পেশায় মোটরসাইকেলচালক।

ঘটনার পর পরই আহত সজীব চাকমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নেন গ্রামবাসীরা।

সাজেক থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নুরুল আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘আহত ও নিহত দুজনই পেশায় মোটরসাইকেলচালক ও সম্পর্কে চাচাতো ভাই বলে জানা গেছে। তারা পাহাড়ের আঞ্চলিক সংগঠন জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) সমর্থক বলে স্থানীয় গ্রামবাসীরা জানান’।

এদিকে, এই ঘটনার জন্য পাহাড়ের আরেক আঞ্চলিক সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টকে (ইউপিডিএফ) দায়ী করেছেন জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) সন্তু সমর্থিত বাঘাইছড়ি উপজেলার সাংগঠনিক সম্পাদক ত্রিদীপ চাকমা।

ত্রিদিপ চাকমা বলেন, ‘আমরা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি’।

এদিকে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) সাজেক অঞ্চলের সমন্বয়ক আর্জেন্ট চাকমা দাবি করেন, এই ঘটনার সঙ্গে তাদের দলের কোনো সম্পর্ক নেই। এছাড়া নিউলংকর এলাকায় ইউপিডিএফের কোনো কর্মকাণ্ড নেই বলেও দাবি করেন তিনি।

এটি জেএসএসের অভ্যন্তরীণ বিষয় বলে জানান তিনি।

বাঘাইছড়ি ও সাজেক থানার সার্কেল এএসপি (সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার) আব্দুল আওয়াল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘সংবাদ পাওয়ার পরপরই এলাকায় টহল জোরদার করা হয়েছে। লাশ উদ্ধারসহ আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছি’।

এলাকাটি খুবই দুর্গম। উপজেলা সদর থেকে প্রায় ৩০ কিলোমিটার দূরে, তাই কিছুটা সময় লাগবে বলে জানান তিনি।

এদিকে ২ ডিসেম্বর পার্বত্য শান্তি চুক্তির ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে বাঘাইছড়ি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জনসমাবেশের প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে জনসংহতি সমিতি (জেএসএস)। এর দুই দিন আগে এমন ঘটনায় এলাকায় সাধারণ মানুষের মাঝে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

সমাবেশকে ঘিরে বড় সংঘাতের আশঙ্কা করছে অনেকে। ফলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে বাঘাইছড়ির বিভিন্ন পয়েন্টে নজরদারি বাড়ানো হয়েছে।

XS
SM
MD
LG