অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

চীনে জনবিক্ষোভের প্রতি তাইওয়ানে সমর্থন প্রকাশ


চীনে লকডাউনের বিরুদ্ধে হওয়া বিক্ষোভের প্রতি সমর্থন জানাতে তাইওয়ানের রাজধানী তাইপেই এর বাসিন্দারা শহরটির লিবার্টি স্কয়ারে সমবেত হয়েছেন, ৪ ডিসেম্বর ২০২২।

দুই সপ্তাহ ধরে তাইওয়ানের মানুষজন ছোট ছোট দলে সমবেত হয়ে, চীন সরকারের কঠোর কোভিড বিধিনিষেধ ও লকডাউন এর বিরুদ্ধে চীনের মানুষের প্রতিবাদগুলোর পক্ষে সমর্থন প্রকাশ করেছেন। ১৯৮৯ সালে তিয়ানআনমেন স্কয়ার বিক্ষোভের পর এটিই চীনে হওয়া বৃহত্তম অসহযোগ আন্দোলন।

তাইপেই এর লিবার্টি স্কয়ার এবং ন্যাশনাল তাইওয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে হওয়া র‌্যালিগুলোতে ১০০ থেকে ২০০ জন অংশগ্রহণ করেছেন। অংশগ্রহণকারীরা মূলত শিক্ষার্থী কিন্তু তাদের মধ্যে ডেমোক্র্যাটিক প্রগ্রেসিভ পার্টি বা ডিপিপি’র আরও রাজনৈতিক মনস্ক সদস্যরাও রয়েছেন, যারা কিনা তাইওয়ানের স্বাধীনতার পক্ষের সক্রিয়কর্মী। এছাড়াও হংকং, তিব্বত, ও চীনের পশ্চিমাঞ্চলের উইঘুর সংখ্যালঘুদের সাথে সম্পর্কিত ব্যক্তিরাও সেগুলোতে অংশগ্রহণ করেন।

চীনকে “কোভিড শূন্য” করার উদ্দেশ্যে সেখানে কঠোর বিধিনিষেধ আরোপের প্রেক্ষাপটে, এই র‌্যালিগুলোর আয়োজক ও অংশগ্রহণকারীদের জন্য মূলভাবটি বহুলাংশেই সার্বজনীন মানবাধিকার ও গণতন্ত্রকে ঘিরে আবর্তিত হয়েছে। আয়োজক ও বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী অ্যাঞ্জেলিনা লিন এর মতে, রবিবার লিবার্টি স্কয়ারে আয়োজিত র‌্যালির উদ্দেশ্য ছিল এটা প্রদর্শন করা যে, “বিশ্বের সব নাগরিকের জন্যই মানবাধিকার [প্রযোজ্য]”।

সাম্প্রতিক র‌্যালিগুলোতে উপস্থিতির সংখ্যা, ইউক্রেন যুদ্ধের মত সাম্প্রতিক অন্যান্য বিষয়গুলো নিয়ে আয়োজিত র‌্যালির মতই ছিল। তবে এগুলোতে উপস্থিতি, হংকং এর পক্ষে সংহতি প্রকাশের জন্য আয়োজিত র‌্যালিগুলোর তুলনায় একেবারেই কম ছিল। ২০১৯ এর গ্রীষ্মে হওয়া হংকং এর পক্ষের মিছিলগুলোতে তাইওয়ানের হাজার হাজার মানুষ অংশগ্রহণ করেন, যখন কিনা হংকং জুড়ে গণতন্ত্রপন্থী বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছিল।

XS
SM
MD
LG