অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক ধারা অব্যাহত থাকবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি


বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে রোববার গণভবনে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন জাপানের বিদায়ী রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে, বাংলাদেশের শান্তি, স্থিতিশীলতা, আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের বিদায়ী রাষ্ট্রদূত ইতো নাওকি। রবিবার (১১ ডিসেম্বর) প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে গণভবনে সাক্ষাৎ কালে তিনি এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

সাক্ষাৎ শেষে প্রধানমন্ত্রীর ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি কে এম শাখাওয়াত মুন সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি বলেন যে উভয়ে রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়েও আলোচনা করেছেন এবং একমত হয়েছেন যে ১০ লাখেরও বেশি জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত মিয়ানমারের নাগরিক বাংলাদেশের জন্য একটি বিশাল বোঝা। তারা মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের নিরাপদে স্বদেশে প্রত্যাবর্তনের ওপর জোর দিয়েছে।

ডেপুটি প্রেস সেক্রেটারি জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভাসানচর দ্বীপের উন্নয়নের পর রোহিঙ্গাদের জন্য আশ্রয়স্থল স্থাপনে জাপানের সহায়তার প্রশংসা করেন। বাংলাদেশ বিনিয়োগের জন্য একটি লাভজনক স্থান হওয়ায়, জাপানের ব্যবসায়ীদের বৃহত্তর বিনিয়োগে আসার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

বাংলাদেশ ও জাপানের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য আরও বাড়বে বলে আশা প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্র বন্দর, ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনাল এবং ঢাকা মেট্রোরেলের মতো বাংলাদেশের মেগাপ্রকল্প বাস্তবায়নে জাপানের সহায়তার প্রশংসা করেন।

প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের উন্নয়নে অব্যাহত সমর্থন কামনা করেন এবং জাপানের রাষ্ট্রদূত সবসময় দেশের উন্নয়ন প্রচেষ্টায় পাশে থাকার আশ্বাস দেন। শেখ হাসিনা বিদেশিদের জন্য একটি ডেডিকেটেড ট্যুরিস্ট জোন গড়ে তুলতে জাপানের সহযোগিতা কামনা করেন। জাপানি রাষ্ট্রদূত এটিকে একটি ভালো উদ্যোগ হিসেবে বর্ণনা করেন এবং সহযোগিতা করার আগ্রহ প্রকাশ করেন।

শেখ হাসিনা বাংলাদেশে তার মেয়াদ সফলভাবে সমাপ্ত করার জন্য এবং বাংলাদেশ ও জাপানের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য বৃদ্ধিতে তার ভূমিকার জন্য জাপানের রাষ্ট্রদূতকে অভিনন্দন জানান।

জাপানের রাষ্ট্রদূত বলেন, ১৯৭৩ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সফরের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ ও জাপানের মধ্যে সম্পর্কের ভিত্তি তৈরি হয়েছিল।

XS
SM
MD
LG