অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

পাকিস্তান-আফগানিস্তান সীমান্ত সংঘর্ষে নিহত ৭, আহত ৩১


পাকিস্তান-আফগানিস্তান সীমান্তবর্তী পাকিস্তানের চামান শহরে এক ব্যক্তি তার আত্মীয়দের মৃত্যুতে শোক করছেন। সেনাবাহিনীর মতে, তারা ঐ গোলাবর্ষণের সময় নিহত হয়েছেন। ১১ ডিসেম্বর ২০২২।
পাকিস্তান-আফগানিস্তান সীমান্তবর্তী পাকিস্তানের চামান শহরে এক ব্যক্তি তার আত্মীয়দের মৃত্যুতে শোক করছেন। সেনাবাহিনীর মতে, তারা ঐ গোলাবর্ষণের সময় নিহত হয়েছেন। ১১ ডিসেম্বর ২০২২।

রবিবার পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের মধ্যে মারাত্মক সীমান্ত সংঘর্ষে অন্তত সাতজন নিহত ও ৩০ জনেরও বেশি আহত হয়েছেন।

পাকিস্তানের সামরিক বাহিনী এক বিবৃতিতে বলে যে, সংঘর্ষগুলো দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সীমান্তবর্তী চামান শহরে সংঘটিত হয়। শহরটি আফগানিস্তানের কান্দাহার প্রদেশের পাশে অবস্থিত।

হামলায় পাকিস্তানের ছয়জন বেসামরিক মানুষের প্রাণহানি হয় এবং অপর আরও ১৭ জন আহত হন বলে, বিবৃতিতে জানানো হয়।

তবে, আখতার মোহাম্মদ নামে চামানের প্রধান সরকারি হাসপাতালের একজন জ্যেষ্ঠ চিকিৎসক টেলিফোনে ভিওএ-কে বলেন যে, তাদের হাসপাতালে ছয়জন বেসামরিক মানুষের মরদেহ ও আহত ২১ জনকে নিয়ে আসা হয়েছে। তিনি বলেন যে, আহতদের মধ্যে ৭ জন “আশঙ্কাজনক পরিস্থিতিতে রয়েছেন” এবং তাদেরকে প্রাদেশিক রাজধানী কোয়েটা’র এক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

সামরিক বাহিনীর বিবৃতিতে বলা হয়, তালিবান সীমান্তরক্ষী বাহিনী পাকিস্তানের বেসামরিক এলাকায় “অপ্ররোচিতভাবে ও নির্বিচারে আর্টিলারি/মর্টার সহ ভারি অস্ত্র থেকে গোলাবর্ষণ আরম্ভ করে”। বিবৃতিটিতে বলা হয় যে, “এই অপ্রয়োজনীয় আগ্রাসন” এর বিরুদ্ধে পাকিস্তানের সৈন্যরা “যথোপযুক্ত কিন্তু পরিমিত প্রতিক্রিয়া জানায়, তবে ঐ এলাকার নির্দোষ বেসামরিক মানুষদের লক্ষ্যবস্তু বানানো থেকে বিরত থাকে”।

কান্দাহারের গভর্নরের এক মুখপাত্র, মৌলভী আতাউল্লাহ জাইদ টেলিফোনে ভিওএ-কে বলেন যে, আফগানিস্তানের অংশে একজন তালিবান সীমান্তরক্ষী নিহত হয়েছেন এবং ১০ জন আহত হয়েছেন, যাদের মধ্যে তিনজন আফগান বেসামরিক মানুষ রয়েছেন।

পাকিস্তানের সৈন্যরা তাদের নিজেদের দিকে সীমান্ত বেঁড়াটির একটি অংশ মেরামতের চেষ্টা করার সময়ে, তালিবান বাহিনী তাদের সেই প্রচেষ্টায় আপত্তি জানায় এবং পরবর্তীতে জটিলাবস্থাটির অবসানে একটি আলোচিত সমাধান খোঁজার প্রচেষ্টাগুলো ব্যর্থ হয়। এর ফলশ্রুতিতেই রবিবারের সংঘর্ষগুলো আরম্ভ হয়। স্থানীয় কর্মকর্তারা ও বাসিন্দারা এমন তথ্য জানিয়েছেন।

XS
SM
MD
LG