অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জর্ডান যীশুর ব্যাপটিজম ‘এর স্থানের কাছে উন্নয়নের জন্য অর্থায়ন চেয়েছে


জর্ডান নদী উপত্যকায়, পুরোহিতরা একটি গণ উদযাপন করেন যেখানে খ্রিস্টানরা বিশ্বাস করেন যে যীশুর ব্যাপটিজম অর্থাত্ দীক্ষা গ্রহণ হয়েছিলো ৷ ফাইল ছবি- ১৪ জানুয়ারী, ২০২২।

জর্ডান, জর্ডান নদীর পূর্ব তীরে অবস্থিত যীশু খ্রীস্টের ব্যাপটিজমের অর্থাত্ দীক্ষা গ্রহণের আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকৃত স্থানটি উন্নয়নের জন্য বড়দিন উদযাপনের আগে ৩০ কোটি ডলারের ছয়-পর্যায়ের একটি প্রকল্প চালু করেছে।

জর্ডান বিভিন্ন ধরনের পর্যটন সম্ভাবনার সুযোগ দেয়: অ্যাডভেঞ্চার, চিকিৎসা এবং ধর্মীয়, অনেক উল্লেখযোগ্য খ্রিস্টান এবং বাইবেলে বর্ণিত স্থান সহ। তবে জর্ডানের ক্যাথলিক ধর্মযাজক ফাদার রিফাত বাদের বলেন, সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হল যীশু খ্রীস্টের দীক্ষাগ্রহণ বা ব্যাপটিজমের স্থান।

বাডার, যিনি আম্মানের ক্যাথলিক সেন্টার ফর স্টাডিজ অ্যান্ড মিডিয়া পরিচালনা করেন, তিনি উল্লেখ করেছেন যে এর গুরুত্ব স্বীকার করে তিনজন ক্যাথলিক পোপ – দ্বিতীয় সেন্ট জন পল, ১৬তম পোপ বেনেডিক্ট এবং পোপ ফ্রান্সিস - সকলেই পবিত্র স্থানটি পরিদর্শন করেছিলেন৷ ২০১৫ সালে, এটি একটি ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট হিসাবে স্বীকৃতি পায়।

বাদের বলেন, "২০০০ বছর ধরে আমরা গীর্জা প্রতিষ্ঠা করেছি। এখন এই স্থানে আসা পর্যটক বা তীর্থযাত্রীদের চাহিদা পূরণ করার সময়। এখন পর্যন্ত আমাদের অনেক পরিষেবাই নেই।"

প্রাচীন রোমান এবং বাইজেন্টাইন সময়কার গীর্জাগুলি, একটি মঠ এবং জন ব্যাপটিস্টের দ্বারা যীশুর ব্যাপটিজমের স্মরণে ব্যাপটিজমের জলাধারগুলো শতাব্দীর পর শতাব্দী ধরে ভূমিকম্প এবং বন্যায় ধ্বংস হয়ে গিয়েছিল। এখন ঐ স্থানে দর্শকদের জন্য থাকার ব্যবস্থা এবং পরিষেবার অভাব রয়েছে৷

জর্ডানের প্রাক্তন শ্রমমন্ত্রী সামির মুরাদ এখন ব্যাপটিজম সাইট সংলগ্ন জমিতে অলাভজনক ফাউন্ডেশনের জন্য ১৬০-হেক্টর এলাকার উন্নয়নের জন্য একটি প্রকল্পের তত্ত্বাবধানের দায়িত্ব পেয়েছেন। এর লক্ষ্য হল প্রকৃত শিক্ষামূলক এবং আধ্যাত্মিক অভিজ্ঞতা প্রদান করা, সেইসাথে বেদুইন তাঁবু এবং রেস্তোরাঁর ব্যবস্থা করা।

মুরাদ বলেন, "এই স্থানটি সম্প্রতি আবিষ্কার করা হয়েছে। আমরা এখন বিষয়টি বিশ্বকে জানাচ্ছি। এটি স্পষ্টভাবে নথিভুক্ত এবং প্রমাণিত এবং স্বীকৃত যে এটি যীশু খ্রীস্টের সত্যিকারের ব্যাপটিজমের স্থান। জর্ডান শাসনকারী হাশেমাইট পরিবার এই অঞ্চলের পবিত্র স্থানগুলির ঐতিহ্যবাহী রক্ষক। তারা এই স্থানটিকে রক্ষা ও সংরক্ষণের জন্য নিজেদের উপর দায়িত্ব নিয়েছে।”

বাইবেলে বর্ণিত গাছপালা এবং ভেষজ উদ্ভিদের একটি বোটানিক্যাল গার্ডেন সেইসাথে পাখির অভয়ারণ্য, জাদুঘর এবং ছোট অ্যাম্ফিথিয়েটার প্রকল্পে কল্পনা করা হয়েছে। মরুভূমির পরিবেশের অখণ্ডতা বজায় রাখার জন্য ওয়াই-ফাই এবং বিশ্বব্যাপী যোগাযোগের অবকাঠামো মাটির নিচ দিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে।

মুরাদ বলেছেন, এবং তাদের ট্রাস্টি বোর্ড বলছেন তারা সক্রিয়ভাবে সরকারী সংস্থা, ধর্মীয় সংস্থা এবং অন্যান্যদের কাছ থেকে অর্থায়ন চাইছেন।

XS
SM
MD
LG