অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জাতিসংঘের অনুরোধ উপেক্ষা করে জনসমক্ষে বেত্রাঘাতের ঘোষণা দিলো তালিবান


পারওয়ান প্রদেশের চারিকার শহরে এক ফুটবল স্টেডিয়ামে নারী ও পুরুষদের জনসমক্ষে বেত্রাঘাত প্রত্যক্ষ করছে সমবেত মানুষ এবং তালিবান নিরাপত্তারক্ষী, ৮ ডিসেম্বর ২০২২। (ফাইল ফটো)

আফগানিস্তানে তালিবান অপরাধীদের জনসমক্ষে বেত্রাঘাতের নতুন ঘোষণা দিয়েছে, যাদের মধ্যে নারী ও পুরুষ উভয়ই রয়েছেন। এর মাধ্যমে তারা এ ধরণের আচরণ অবিলম্বে বন্ধ করতে তালিবানের প্রতি জাতিসংঘের আহ্বান উপেক্ষা করল।

তালিবানের সুপ্রিম কোর্ট সোমবার জানায় যে, নারীসহ মোট ২২ জন ব্যক্তিকে উত্তরাঞ্চলের জোওজজান প্রদেশের রাজধানী শেবেরঘান এর একটি জনবহুল স্টেডিয়ামে বেত্রাঘাত করা হয়েছে।

বিবৃতিটিতে বলা হয়, তাদের অপরাধগুলোর জন্য প্রত্যেককে ২৫ থেকে ৩০টি বেত্রাঘাত করা হয়। অভিযোগগুলোর মধ্যে রয়েছে ব্যভিচার, সমকামী যৌনমিলন, বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়া, মাদক চোরাচালান ও চুরি। ঐ আদালত রবিবার আরও জানায় যে, একই ধরণের অপরাধের জন্য ১১ জন পুরুষ ও নারীকে মধ্যাঞ্চলের ঘোর প্রদেশে বেত্রাঘাত করা হয়েছে।

কার্যত আফগানিস্তান শাসনকারী এই কর্তৃপক্ষ, মধ্য-নভেম্বর থেকে বেশ কয়েকটি প্রদেশ ও রাজধানী কাবুলের জনবহুল স্টেডিয়ামগুলোতে ১৩০ জনেরও বেশি পুরুষ ও নারীকে বেত্রাঘাতের সাজা কার্যকর করেছে। নভেম্বরের সে সময়ে তালিবানের সর্বোচ্চ নেতা হিবাতুল্লাহ আখুন্দজাদা বিচার বিভাগকে ইসলামী আইন বা শরীয়া ভিত্তিক শাস্তি বাস্তবায়নের আদেশ দেন।

ঐ আদেশের ফলে, ২০২১ সালের আগস্টে তালিবান ক্ষমতায় ফিরে আসার পর থেকে প্রথম কোন দোষী সাব্যস্ত খুনীর জনসমক্ষে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়।

বেত্রাঘাত ও মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের ঘটনাগুলো তালিবানের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও সাধারণ জনগণের উপস্থিতিতে স্টেডিয়ামে কার্যকর করা হয়।

XS
SM
MD
LG