অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের জেলা কুড়িগ্রামে বাড়তে শুরু করেছে শীতের প্রকোপ


কুড়িগ্রামে শীতের প্রকোপ
কুড়িগ্রামে শীতের প্রকোপ

ঘন কুয়াশা আর তীব্র শীতের প্রভাবে পৌষের শুরুতেই বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলের জেলা কুড়িগ্রামে বাড়তে শুরু করেছে শীতের প্রকোপ। উত্তরের হিমেল হাওয়ায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে সেখানকার জনপদ।

শুক্রবার (২৩ ডিসেম্বর) কুড়িগ্রামের রাজারহাট কৃষি আবহাওয়া অফিসের তথ্য অনুযায়ী সকালে জেলার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এ ছাড়া ভোর থেকে দেখা মেলেনি সূর্যের। ঘন কুয়াশার কারণে জেলার ট্রেন ও নৌ চলাচলে কিছুটা বিঘ্নিত হয়েছে। দেরি করে ছাড়ছে এসব যানবাহন।

শীতের তীব্রতা বাড়ার কারণে সব থেকে বেশি বিপাকে পড়েছেন নদী তীরবর্তী অঞ্চলের শিশু ও বয়স্করা।

এ অবস্থায় চলতি মাসের শেষের কয়েকটি দিন ও বছরের শুরুতে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন রাজারহাট কৃষি আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগার।

কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার ধরলা নদীর তীরবর্তী এলাকার বাবলু মিয়া বলেন, ‘কয়েক দিন ধরে অত্যধিক কুয়াশা পড়ছে। সেই সঙ্গে হিমেল বাতাসে ঠাণ্ডা বেড়ে যাওয়ায় কাজ করতে কষ্ট হচ্ছে। অর্থের অভাবে শীতবস্ত্রও কিনতে পারছি না। সরকারিভাবেও এখনো শীতবস্ত্র বিতরণ শুরু হয়নি’।

একই এলাকার পাশ্ববর্তী গ্রামের কৃষক তাজুল ইসলাম জানান, শীত উপেক্ষা করে আলু ক্ষেতের পরিচর্চা, বীজতলা তৈরীসহ নানা ধরনের কৃষিকাজ করতে হচ্ছে। তিনি বলেন, ‘ঠাণ্ডায় কাজ করতে গিয়ে হাত পা ঠাণ্ডা হয়ে যায়’।

শীতের কারণে সর্দি, কাশিসহ নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন অনেকেই।

স্থানীয় প্রশাসন জানিয়েছে, শীত মোকাবিলায় দুর্গত মানুষের সহায়তার প্রস্তুতি নিয়েছেন তারা। আসন্ন শীতে জেলার গরিব ও দুস্থদের মাঝে বিনামূল্যে বিতরণের জন্য প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল থেকে ৩৮ হাজার কম্বল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

বরাদ্দকৃত এসব কম্বল ইতিমধ্যে জেলার ৯ উপজেলায় পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসনের দুর্যোগ ও ত্রাণ ব্যবস্থাপনা শাখা।

কুড়িগ্রামের রাজারহাট কৃষি আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. তুহিন মিয়া বলেন, ‘শুক্রবার সকালে জেলার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ১১ ডিগ্রি সেলসিয়াস’। আগামীতে এ তাপমাত্রা আরও কমতে পারে বলেও জানান তিনি।

এদিকে বাংলাদেশ আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, চলতি মাসের শেষের দিকে ও বছরের শুরুতে দেশের কোথাও কোথাও এক থেকে দুটি মৃদু কিংবা মাঝারি তীব্রতায় শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

XS
SM
MD
LG