অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

নিকারাগুয়ায় ‘স্বাধীন গণমাধ্যমের জন্য এ বছরটি সবচেয়ে খারাপ’


২০২০ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি নিকারাগুয়ার মানাগুয়ায় লা প্রেনসা সংবাদপত্র মুদ্রণ স্থানে প্রেস চালানোর আগে একজন কর্মী কাগজের একটি রোল প্রস্তুত করছেন। ২০২২ সালে লা প্রেনসা তাদের সম্পূর্ণ কার্যক্রম দেশের বাইরে সরাতে বাধ্য হয়েছিল। ফাইল ছবি।

সম্পূর্ণ একটি সংবাদপত্রকে নির্বাসনে যেতে বাধ্য করা, ১২টির বেশি গণমাধ্যমের লাইসেন্স প্রত্যাহার এবং ১২০ জনের বেশি সাংবাদিকের দেশত্যাগ” সাংবাদিক এবং বিশ্লেষকরা বলছেন, নিকারাগুয়া সংবাদপত্রের স্বাধীনতার জন্য তাদের সবচেয়ে খারাপ সময়ের একটি প্রত্যক্ষ করছে।

লা প্রেনসার প্রধান সম্পাদক এডুয়ার্ডো এনরিকেজ ভয়েস অফ আমেরিকাকে বলেছেন, “এটি এমন কিছু যা আমরা আগে কখনো দেখিনি।”

নিকারাগুয়ার প্রাচীনতম এবং সর্বাধিক স্বীকৃত সংবাদপত্রগুলোর মধ্যে একটি হলো লা প্রেনসা।২০২২ সালে “ড্যানিয়েল ওর্তেগা শাসনের নিপীড়ন” নিয়ে আওয়াজ তোলার কারণে তারা তাদের সমস্ত কার্যক্রম দেশের বাইরে সরিয়ে নিতে বাধ্য হয়েছিল।

এক বছর আগে পুলিশ রাজধানী মানাগুয়ায় এর কার্যালয়ে অভিযান চালিয়ে এর মুদ্রণ সরঞ্জাম জব্দ করে এবং প্রকাশক জুয়ান লরেঞ্জো হলম্যানকে আটক করে।২০২২ সালের মার্চ মাসে একটি আদালত তাকে অর্থ পাচারের জন্য দোষী সাব্যস্ত করে।

২০২২ সালের আগস্টে নিকারাগুয়ার ফার্স্ট লেডি এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট রোজারিও মুরিলো ঘোষণা করেছিলেন যে, সংবাদপত্রের ভবনটি একটি সাংস্কৃতিক কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহারের জন্য রাজ্য দ্বারা অধিগ্রহণ করা হবে। রাষ্ট্রের সাথে সম্পর্কিত গণমাধ্যমে তিনি প্রাক্তন সংবাদকক্ষকে এমন একটি জায়গা হিসেবে বর্ণনা করেছিলেন যেখানে ‘মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধ’ বানানো হয়।

লা প্রেনসার অভিজ্ঞতাগুলো বিচ্ছিন্ন কিছু নয়। বেশ কয়েকজন সাংবাদিককে আটক করা হয়েছে এবং অন্যদের লাইসেন্স বাতিল করা হয়েছে।

আরেকজন সুপরিচিত গণমাধ্যমের মালিক- হান্ড্রেড পার্সেন্ট নোটিসিয়াসের প্রতিষ্ঠাতা এবং বিরোধী রাজনীতিবিদ মিগুয়েল মোরা ২০২১ সালে একই অভিযোগে মেন্ডোজার মতো একই সময়ে গ্রেপ্তার হন।

মন্তব্যের জন্য অনুরোধ করা হলে ওর্তেগা সরকার ভয়েস আমেরিকার অনুরোধে সরাসরি সাড়া দেয়নি।

সরকারের একজন মুখপা্ত্র মুরিলো কাছ থেকে আসা একটি ইমেইলে বলা হয়েছে, “আপনার আগ্রহের জন্য ধন্যবাদ। আপনার এবং আপনার পরিবারের জন্য বড়দিনের শুভেচ্ছা।”

XS
SM
MD
LG