অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ব্রিটিশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রক: শীর্ষ রুশ কর্মকর্তাদের ক্রমাগত রদবদল করা হচ্ছে


রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন, প্রতিরক্ষা মন্ত্রী সের্গেই শোইগু এবং রাশিয়ার সশস্ত্র বাহিনীর চিফ অফ দ্য জেনারেল স্টাফ ভ্যালেরি গেরাসিমভ মস্কোতে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক বোর্ডের ২১ ডিসেম্বর, ২০২২ সালের বৈঠকের পর সামরিক সরঞ্জামের একটি প্রদর্শনীতে যোগ দিচ্ছেন।

শুক্রবার ব্রিটেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসনের একটি বলেছে, “ঊর্ধ্বতন রুশ কর্মকর্তাদের অব্যাহত দোদুল্যমান অবস্থা সম্ভবত রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের যুদ্ধের ভবিষ্যৎ পরিচালনার বিষয়ে অভ্যন্তরীণ বিভাজনকে প্রতিফলিত করে।”

বৃহস্পতিবার ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেন্সকি তার দৈনিক ভাষণে তার বিমান কমান্ডোকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন কারণে তারা “আজ আরেকটি রুশ আক্রমণ সফলভাবে প্রতিহত করেছে।” তিনি বলেন, ৫৪টি ক্ষেপণাস্ত্র, এবং ১১টি আক্রমণকারী ড্রোনকে গুলি করে ভূপাতিত করা হয়েছে।

নতুন করে ক্রমাগত রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলা বৃহস্পতিবার ইউক্রেন জুড়ে শহরগুলোকে আঘাত করেছে। এর ফলে হিমশীতল এই আবহাওয়ার সময় বিদ্যুৎ কেন্দ্র এবং অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ অবকাঠামো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

রয়টার্সের সংবাদ অনুসারে, কর্মকর্তারা এর আগে বলেছিলেন, ১২০টির বেশি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয়েছিল। ইউক্রেনের সেনাবাহিনী বলেছে, এর মধ্যে ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র ছাড়াও বিমান বিধ্বংসী এবং এস-৩০০ এডিএমএস (এয়ার ডিফেন্স মিসাইল সিস্টেম)ছিল।

রাশিয়া বারবার ইউক্রেনের শহরগুলোকে লক্ষ্য করে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে। এর মধ্যে কিছু হামলায় গুরুত্বপূর্ণ অবকাঠামোগত স্থানগুলো ধ্বংস হয়েছে। তবে রাশিয়া বেসামরিক মানুষদের লক্ষ্যবস্তু করার বিষয়টি অস্বীকার করে।

ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দ্যমিত্রো কুলেবা এই হামলাকে ‘বিবেচনাহীন বর্বরতা’ বলে অভিহিত করেছেন।

উদ্ধারকারীরা অনুসন্ধান এবং উদ্ধার অভিযান অব্যাহত রেখেছে। রাজধানীতে বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

হামলাগুলো জাপোরিঝিয়া এবং ডিনিপ্রোপেট্রোভস্ক অঞ্চলগুলোকে লক্ষ্য করে করা হয়েছে। তবে জেনারেল স্টাফ জানান, এগুলোর বেশিরভাগই ইউক্রেনের সামরিক বাহিনী দ্বারা ভূপাতিত হয়েছে। তিনি আরও জানান, ৫টি ড্রোন ডিনিপ্রপেট্রোভস্ক অঞ্চলের চারপাশে গুলি করে ভূপাতিত করা হয়েছিল।

অক্টোবর থেকে রাশিয়া প্রায় প্রতি সপ্তাহেই ইউক্রেনের বিদ্যুৎ এবং পানি সরবরাহে আক্রমণ করেছে। তখন থেকে রাশিয়ার স্থল বাহিনী ইউক্রেনের এলাকা ধরে রাখতে বা নতুন এলাকা দখল করতে বাধার সম্মুখীন হচ্ছে।

সর্বসাম্প্রতিক রুশ বিমান হামলার পর কুলেবা টুইট করেছেন, “এ ধরনের গণ যুদ্ধাপরাধের মুখে কোনো ‘নিরপেক্ষতা’ থাকতে পারে না। ‘নিরপেক্ষ’ হওয়ার ভান করা রাশিয়ার পক্ষ নেয়ার সমান।”

এ প্রতিবেদনের কিছু তথ্য এপি, রয়টার্স এবং এএফপি থেকে নেয়া হয়েছে।


XS
SM
MD
LG