অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা শ্রীমঙ্গলে ৮.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস


সর্বনিম্ন তাপমাত্রা শ্রীমঙ্গলে
সর্বনিম্ন তাপমাত্রা শ্রীমঙ্গলে

বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায় বয়ে যাচ্ছে শৈত্যপ্রবাহ। কোথাও মৃদু, কোথাও মাঝারি। মৌলভীবাজার জেলার ওপর দিয়ে কয়েকদিন ধরে বইছে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ। মঙ্গলবার (৩ জানুয়ারি) জেলার শ্রীমঙ্গলে বাংলাদেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। সকাল ৯টার দিকে শ্রীমঙ্গলে তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৮ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এ বছর শ্রীমঙ্গলে এটাই সর্বনিম্ন তাপমাত্রা।

বাংলাদেশর উত্তরাঞ্চল ও বৃহত্তর সিলেটে বিরাজ করছে কনকনে শীত। হিমালয় পাদদেশের জেলাগুলোতে হিমেল হাওয়ায় জনজীবনকে স্থবির করে দিয়েছে। সারা দেশে, বিশেষ করে নদী অববাহিকা ঢেকে থাকছে ঘন কুয়াশায়। তবে, শ্রীমঙ্গলে তাপমাত্রা কম হলেও কুয়াশার দাপট ততটা নয়। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সূর্যের দেখা মিলেছে এই অরন্য আর চা-বাগোনে ছাওয়া অঞ্চলে।

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গ আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের কর্মকর্তা মুজিবুর রহমান বলেন, “শ্রীমঙ্গলে মঙ্গলবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। তবে সূর্য তাড়াতাড়ি ওঠার কারণে, ঠান্ডা একটু কম অনুভূত হচ্ছে। এর আগে, সোমবার এখানে তাপমাত্রা ছিল ৯ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া কেউই ঘর থেকে বের হচ্ছেন না। দিনে ও রাতে খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছে মানুষ।” তিনি আরও বলেন, “বিকাল থেকেই শীতের তীব্রতা বাড়তে থাকে। অনেকটা বেলা পর্যন্ত তা অব্যাহত থাকছে।”

মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আর,এম,ও) ডা. ফয়সল জামান জানান, শিশু ওয়ার্ডে সিট রয়েছে ৫১টি। শীত আসার পর থেকে প্রতিদিন ভর্তি থাকছে ৮০ থেকে ৯০ জন শিশু। তবে মঙ্গলবার শিশু ভর্তি কমেছে।

উল্লেখ্য, ১৯৬৮ সালের ৪ ফেব্রুয়ারিতে এ অঞ্চলে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছিল ২ দশমিক ৮ ডিগ্রি।

XS
SM
MD
LG