অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মার্চে জাতীয় গ্রিডে আসবে আদানি গ্রুপের ৭৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ: প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ


বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ
বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ

বাংলাদেশের বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ জানিয়েছেন যে ভারতের আদানি গ্রুপের ৭৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আগামী মার্চে জাতীয় গ্রিডে আসবে। মঙ্গলবার (৩ জানুয়ারি) ভারতের ঝাড়খণ্ড বিদ্যুৎ কেন্দ্র পরিদর্শনের পর প্রতিমন্ত্রী এ কথা জানিয়েছেন বলে পাওয়ার ডিভিশনের বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ভারতের আদানি গ্রুপের ঝাড়খণ্ড পাওয়ার প্লান্টের বিদ্যুতের দাম প্রতি ইউনিট ২২ টাকা হবে। এই বছরের মার্চ থেকে আমদানি শুরু হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

সফরকালে নসরুল হামিদ সাংবাদিকদের জানান, “বাংলাদেশ চলতি বছরের মার্চ থেকে বিদ্যুৎ পাবে; এর জন্য একটি ডেডিকেটেড ট্রান্সমিশন লাইন স্থাপন করা হয়েছে পাওয়ার ডিভিশনের বিবৃতিতে প্রতিমন্ত্রীকে উদ্ধৃত করে বলা হয়েছে, “আদানি গ্রুপের ঝাড়খণ্ড প্ল্যান্ট থেকে বিদ্যুৎ আমদানি মার্চ থেকে সম্ভব হবে। প্রাথমিকভাবে আমরা প্ল্যান্ট থেকে প্রায় ৭৫০ মেগাওয়াট পাব। আগামী গ্রীষ্মে আমাদের চাহিদা মেটাতে আরও বিদ্যুতের প্রয়োজন।”

আদানি গ্রুপের ঝাড়খন্ড কয়লা-চালিত বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে ৮০০ মেগাওয়াট করে মোট এক হাজার ৬০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আসবে বলে জানান বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী। নসরুল হামিদ বলেন, “আমরা শক্তির বিকল্প উৎস খুঁজছি। আমরা সাশ্রয়ী মূল্যে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ-কে অগ্রাধিকার দিয়ে কাজ করে যাচ্ছি।”

বাংলাদেশে বিদ্যুৎ রপ্তানি করার জন্য ২০১৭ সালের ৫ নভেম্বর বাংলাদেশ-ভারত চুক্তি সই হয়। সেই চুক্তির পর, ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য ঝাড়খন্ডে ১৬০০ মেগাওয়াট পাওয়ার প্ল্যান্ট স্থাপন করা হয়। আর, পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অফ বাংলাদেশ (পিজিসিবি), বাংলাদেশের চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও বগুড়ায় দুটি সাবস্টেশন এবং বিদ্যুৎ আমদানির জন্য একটি সঞ্চালন লাইন নির্মাণ করে।

XS
SM
MD
LG