অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সরকার বিচার ব্যবস্থায় হস্তক্ষেপ করে না: আইনমন্ত্রী আনিসুল হক


আইনমন্ত্রী আনিসুল হক
আইনমন্ত্রী আনিসুল হক

বাংলাদেশের আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন যে সরকার বিচার ব্যবস্থায় হস্তক্ষেপ করে না। শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা প্রেসক্লাবে তিনি এ কথা বলেন।

আনিসুল হক আরও বলেন, “আদালত স্বাধীনভাবে সিদ্ধান্ত নিচ্ছে।” বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের জামিনের বিরুদ্ধে সরকারের আপিলের বিষয়ে সাংবাদিকরা জানতে চাইলে আইনমন্ত্রী এ কথা বলেন।

আইনমন্ত্রী জানান, তাদের মুক্তিতে সরকারের কোনো হস্তক্ষেপ নেই। অ্যাটর্নি জেনারেলের বরাত দিয়ে তিনি বলেন, দুই নেতার হাইকোর্টে জামিন প্রক্রিয়ায় আইন লঙ্ঘন হয়েছে। তাই হাইকোর্টের আদেশ চ্যালেঞ্জ করে আপিল বিভাগে আবেদন করা হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া আদালতে বিচারকের সঙ্গে অসদাচরণের বিষয়ে আনিসুল বলেন, “বিচার বিভাগ স্বাধীন, এখন হাইকোর্ট বিষয়টি এখতিয়ারে নিয়েছে। এ বিষয়ে আমিকিছু বলতে পারবো না।” তিনি বলেন, “আমি ঘটনার ভিডিও ফুটেজ দেখেছি এবং যদি এটি সত্য হয় তবে আমি লজ্জিত ও দুঃখিত। একজন আইনজীবী পরিবারের সদস্য হিসেবে আমি বিশ্বাস করি, যে ঘটনা ঘটেছে তা আইনজীবীরা করতে পারেন না। আমি এটা বিশ্বাস করি না।”

বৃহস্পতিবার (৫ জানুয়ারি) ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ ফারুকের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া আইনজীবী সমিতির সভাপতিসহ তিন আইনজীবীকে তলব করেন বিচারপতি জেবিএম হাসান ও বিচারপতি রাজিক-আল-জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

যাদের তলব করা হয়েছে, তারা হলেন; আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট তানভীর আহমেদ ভূঁইয়া, সচিব (প্রশাসন) অ্যাডভোকেট মো. আক্কাস আলী ও অ্যাডভোকেট জুবায়ের ইসলাম।

এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে গত ৪ জানুয়ারি জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ ফারুক হাইকোর্টে লিখিত অভিযোগ পাঠান। পরে প্রধান বিচারপতির নির্দেশে সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল, বিচারপতির লিখিত অভিযোগ হাইকোর্ট বেঞ্চে পাঠান।

XS
SM
MD
LG