অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশে শৈত্যপ্রবাহ থাকবে আরও কয়েক দিন, সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৮.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস


বাংলাদেশে শৈত্যপ্রবাহ থাকবে আরও কয়েক দিন, সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৮.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস

একটি মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বাংলাদেশের বিভিন্ন অংশে বয়ে যাচ্ছে। আরও দুই থেকে তিন দিন এমন অবস্থা অব্যাহত থাকতে পারে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর। বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের (বিএমডি) আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক জানান, গত কয়েকদিন ধরে দেশের বেশির ভাগ এলাকায় তাপমাত্রা কমেছে। শনিবার (৭ জানুয়ারি) সকালে ঢাকায় ১১ দশমিক পাঁচ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে, রাজধানীতে যা এই মৌসুমের সর্বনিম্ন। আর দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল চুয়াডাঙ্গায়, ৮ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আগাম বার্তায় বলা হয়, বাংলাদেশে এরূপ পরিস্থিতি আগামী দুই-তিন দিন অব্যাহত থাকতে পারে। আগামী ১১ থেকে ১২ জানুয়ারির মধ্যে পরিস্থিতির উন্নতি হতে পারে।

শনিবার আবহাওয়া বিভাগের এক বুলেটিনে বলা হয়েছে, রাজশাহী বিভাগ, ফরিদপুর, মাদারীপুর, কিশোরগঞ্জ, দিনাজপুর, নীলফামারী, পঞ্চগড়, যশোর, চুয়াডাঙ্গা, কুষ্টিয়া, সাতক্ষীরা ও বরিশাল জেলায় মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে। শনিবার সন্ধ্যা ৬টায়, আগামী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। এতে বলা হয়েছে, সারাদেশে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে।

মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত সারাদেশে মাঝারি থেকে ঘন কুয়াশা পড়তে পারে এবং কোথাও কোথাও তা দুপুর পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। সারাদেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকবে। দিন ও রাতের তাপমাত্রার পার্থক্য কমে যাওয়ায়, সারাদেশে মাঝারি থেকে তীব্র শৈত্যপ্রবাহের সম্ভাবনা রয়েছে।

চুয়াডাঙ্গায় দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা

এদিকে, তীব্র শীতে কাঁপছে চুয়াডাঙ্গা। শনিবার দেশের ও এ মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৮ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয় চুয়াডাঙ্গায়। শুক্রবার এ জেলায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়। আর শনিবার বাতাসের আর্দ্রতা ছিল ৯৫ শতাংশ। এছাড়া রবিবার (৮ জানুয়ারি) তাপমাত্রা আরও কমতে পারে বলেও আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগারের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রকিবুল হাসান জানান, শনিবার সকাল ৯টায় এ জেলায় দেশের এবং মৌসুমের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৮ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। এই পরিস্থিতি অব্যাহত থাকতে পারে আরও দু-এক দিন।

XS
SM
MD
LG