অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আফগান তালিবানের বিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে বিদেশি ছাত্রীদের প্রতিবাদ


পাকিস্তানি ছাত্রীরা ইসলামাবাদে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন। ইসলামাবাদ, জানুয়ারি ১০,২০২৩।

আফিগানিস্তানে নারী শিক্ষার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে উপস্থিত থাকা তালিবান নিষিদ্ধ করার ফলে বিদেশি শিক্ষার্থী যারা সেখানে চিকিত্সা শাস্ত্র পড়ছিলেন তাদের জন্য মারাত্মক বিপদ ডেকে এনেছে।

গত সপ্তায় ১০৫ জন নারী শিক্ষার্থী পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদে আন্তর্জাতিক সহায়তার আবেদন জানিয়ে এই নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে আবেদন জানান। এই সব ছাত্রী আফগানিস্তানের সীমান্তবর্তী পাকিস্তানের পশ্চিমে খাইবার-পাখতুনখোয়া এলাকা থেকে সেখানে পড়তে যান।

মঙ্গলবার এই বিক্ষোভকারীরা জাতিসংঘের সাহায্যের জন্য আবেদন জানান এবং পাকিস্তান সরকারকে সরকারি খাতের মেডিকেল কলেজগুলিতে বিশেষ বৃত্তি প্রদানের দাবি জানিয়েছেন।

আফগানিস্তানের পূর্বাঞ্চলীয় শহর নানগারগারহারের একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিত্সা বিজ্ঞানের তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী সানা গুল বলেন, “আমরা ইসলামাবাদে জাতিসংঘের দপ্তরে গিয়েছিলাম, আমরা আমাদের জন্য বৃত্তির ব্যবস্থা করতে তাঁদের কাছে আবেদন জানিয়েছি । আমরা এই ১০৫ জন শিক্ষার্থী; আমরা তাদের কাছে অনুরোধ করছি আমাদের শিক্ষার সুযোগ দেয়ার জন্য।”

নারীদের উপর এই সব বিধিনিষেধ এবং অন্যান্য কট্টরপন্থি নীতিমালা শারিয়ার উপর ভিত্তি করে করা হয়েছে বলে তালিবান এর পক্ষেই কথা বলছে। তবে মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ বহু দেশ এবং ইসলামি আলেমরা এই যুক্তিকে নাকচ করে দিয়েছেন।

এমন লক্ষণ দেখা দিয়েছে যে তালিবানের এই উগ্রবাদী আদর্শ এবং কট্টর নীতিমালা ঐ অঞ্চলে ব্যাপক সাংস্কৃতিক প্রভাব ফেলছে। পাকিস্তানের পেশাওয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সৈয়দ ইরফান আশরাফ বলেন নারী শিক্ষার উপর তালিবানের নিষেধাজ্ঞা এবং নারীরা কি ধরনের পোশাক পরবেন সে সম্পর্কে বর্ধিত নিষেধাজ্ঞা পাকিস্তানে দৃষ্টিভঙ্গির ‍উপর প্রভাব ফেলছে।

XS
SM
MD
LG