অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

নেতানিয়াহুকে মন্ত্রিসভার মূল মিত্রকে বরখাস্ত করতে হবে: ইসরাইলের উচ্চ আদালত


জেরুজালেমে এক মিটিং চলাকালে ইসরাইলের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরিয়েহ ডেরির কথা শুনছেন প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু। (ফাইল ছবি)

ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুকে অবশ্যই তাঁর নতুন মন্ত্রিসভার একজন প্রধান মিত্রকে বরখাস্ত করতে হবে। বুধবার দেশটির সুপ্রিম কোর্ট এই রায় দিয়েছে।

হাইকোর্ট তার রায়ে বলেছে, আলট্রা-অর্থোডক্স শাস পার্টির প্রভাবশালী প্রধান আরিয়েহ ডেরি, নেতানিয়াহুর পূর্ববর্তী সরকারগুলিতে বেশ কয়েকবার দায়িত্ব পালন করেছেন। গত বছর ট্যাক্স ফাঁকি দেয়ার অপরাধে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর, তিনি মন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব পালনের জন্য অযোগ্য বলে বিবেচিত হয়েছেন। রায় ঘোষণার পর এক আবেদনে ডেরি পদত্যাগ না করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, এবং পরে তিনি প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুর সাথে দেখা করেন।

আদালত এক বিবৃতিতে বলেছে, "প্যানেলের বেশিরভাগ বিচারক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন যে, তার এই নিয়োগ চরম অযৌক্তিক, এবং তাই প্রধানমন্ত্রীকে অবশ্যই ডেরিকে তার পদ থেকে অপসারণ করতে হবে"।

ইসরাইল দেশটির বিচার ব্যবস্থায় ব্যাপক পরিবর্তন নিয়ে চরম বিরোধীতার মুখে পড়ার মুহূর্তে বহুল প্রত্যাশিত এই রায় এলো। বিবেচনাধীন এমন একটি প্রস্তাব হল, সরকারী সিদ্ধান্ত পর্যালোচনা করার সময় আদালতের "যৌক্তিকতার" নিরীক্ষা বাদ দেওয়া।

সমালোচকরা বলছেন, এই ইস্যুতে বিভিন্ন পরিবর্তন সরকারের হাতে অত্যধিক ক্ষমতা দেবে এবং সুপ্রিম কোর্টকে দুর্বল করে দেবে। সমর্থকরা বলছেন, তারা নির্বাহী এবং বিচার বিভাগীয় শাখার মধ্যে ক্ষমতার ভারসাম্যহীনতা সংশোধন করবেন।

নেতানিয়াহুকে এখনই সিদ্ধান্ত নিতে হবে, তিনি আদালতের রায় মেনে চলবেন, নাকি তার প্রধান সহযোগী ডেরিকে বরখাস্ত করবেন, কিংবা বিচার ব্যবস্থার সাথে বিরোধকে একটি খাঁজে নিয়ে যাবেন এবং তা অস্বীকার করবেন। এ বিষয়ে নেতানিয়াহুর একজন মুখপাত্রের কাছে জানতে চাওয়া হলে, তাৎক্ষণিকভাবে তিনি কোনো মন্তব্য করেননি।

জেরুজালেমের চিন্তক গোষ্ঠী, ইসরাইল ডেমোক্রেসি ইনস্টিটিউটের সিনিয়র গবেষক ডঃ আমির ফুচস বলেছেন, নেতানিয়াহুর পক্ষে এই রায়কে উপেক্ষা করার সম্ভাবনা খুবই কম। কারণ রায়কে উপেক্ষা করলে, তিনি আদালত অবমাননার শিকার হবেন এবং সর্বোপরি সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করার কোনো সুযোগ নেই।

ফুচস বলেন, "আমি নিশ্চিত যে, তিনি আদালতের রায় মেনে চলবেন। তবে এর মানে এই নয় যে, তিনি রায়কে সম্মান করবেন। সম্ভবত যা ঘটবে তা হল, তারা খুব দ্রুত একটি আইন প্রণয়ন করবে, যাতে ডেরিকে আবারও নিয়োগ করা যায়।"

সমালোচকরা বলেছেন, এই ধরনের পদক্ষেপ একজন অপরাধীর অপরাধকে মেনে নেয়ার নিয়মকে অভ্যাসে পরিণত করবে, এবং রাজনীতিবিদদের দুর্নীতিকে উত্সাহিত করবে।

শাস মন্ত্রীসভার সদস্য ইয়াকভ মারগি, কান পাবলিক রেডিওকে বলেছেন, "আরিয়েহ ডেরি যদি সরকারে না থাকে, তবে সরকারই হয়তো আর থাকবে না।"

ডেরি বর্তমানে স্বাস্থ্য ও স্বরাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রী হিসেবে অর্ধেক মেয়াদে দায়িত্ব পালন করছেন। মেয়াদের দ্বিতীয়ার্ধে তিনি অর্থমন্ত্রী হতে যাচ্ছিলেন , সেই সাথে তিনি উপ-প্রধানমন্ত্রীও।

জনমত জরিপে দেখা গেছে, বেশিরভাগ ইসরাইলি, সরকারের মন্ত্রী হিসেবে ডেরির বিরোধিতা করেন।

বিরোধীদলীয় নেতা ইয়ার ল্যাপিড বলেছেন, ডেরিকে বরখাস্ত না করা হলে, "ইসরাইল এক নজিরবিহীন সাংবিধানিক সংকটে প্রবেশ করবে, দেশে গণতন্ত্র বলে আর কিছুই থাকবে না এবং ইসরাইলকে একটি আইন মেনে চলা রাষ্ট্র বলে দাবী করা যাবে না।"

১৯৯০-এর দশকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে ২০০০ সালে ঘুষ, জালিয়াতি এবং বিশ্বাসভঙ্গের অভিযোগে, ডেরিকে তিন বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছিল। ২২ মাস জেল খাটার পর, তিনি আবারও রাজনীতিতে প্রত্যাবর্তন করেন এবং ২০১৩ সালে শাস পার্টির লাগাম পুনরায় টেনে ধরেন।

XS
SM
MD
LG