অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মোদী সম্পর্কে বিবিসির ডকুমেন্টারি; ২০০২ সালের দাঙ্গা নিয়ে বিব্রত সরকার


২০২৩ সালের ২৪ জানুয়ারি কোচিতে জেলা কংগ্রেস কমিটির নির্দেশে মেরিন ড্রাইভ মোড়ে স্থাপিত একটি স্ক্রিনে লোকজন বিবিসি ডকুমেন্টারি “ইন্ডিয়া: দ্য মোদী কোশ্চেন” দেখছে।

২০০২ সালের মুসলিম বিরোধী দাঙ্গার সময় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ভূমিকা নিয়ে বিবিসির একটি প্রামাণ্যচিত্র কয়েকদিন আগে ভারত ব্লক করার এবং এটি অনলাইনে শেয়ার করার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। এবার কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রামাণ্যচিত্রটির প্রদর্শনী বন্ধ করতে এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ক্লিপগুলোর শেয়ার সীমাবদ্ধ করতে কর্তৃপক্ষ হিমসিম খাচ্ছে।

প্রামাণ্যচিত্রটির প্রথম পর্ব গত সপ্তাহে বিবিসি তাদের যুক্তরাজ্যের দর্শকদের জন্য প্রকাশ করেছে। এটি ২০০২ সালে পশ্চিম গুজরাট রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন মোদীর রাজনৈতিক জীবনের সবচেয়ে বিতর্কিত পর্বকে পুনরুজ্জীবিত করে। এটি মুসলিম বিরোধী রক্তাক্ত দাঙ্গার ওপর আলোকপাত করে। দাঙ্গায় ১ হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়।

বিবিসি প্রামাণ্যচিত্রটির প্রথম পর্বে, প্রথমবারের মতো একটি গোপন ব্রিটিশ কূটনৈতিক তদন্তের উল্লেখ করা হয়েছে। ওই তদন্তে এই সিদ্ধান্তে পৌঁছানো হয়েছিল যে, মোদী “বিচারহীনতার পরিবেশ”এর জন্য “সরাসরি দায়ী”।

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রক গত সপ্তাহে প্রামাণ্যচিত্রটিকে একটি “বিশ্বাসযোগ্যতাহীন বিশেষ একটি আখ্যানকে প্রচার করার জন্য নকশা করা একটি অপপ্রচারের অংশ” বলে অভিহিত করেছে।

বিবিসি এক বিবৃতিতে বলেছে, প্রামাণ্যচিত্রটির বিষয়বস্তু নিয়ে “পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে গবেষণা করা হয়েছে এবং এতে নানান ব্যক্তির কণ্ঠ এবং মতামত জড়িত।”

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “আমরা ভারত সরকারকে প্রামাণ্যচিত্রটিতে উত্থাপিত বিষয়গুলোর উত্তর দেয়ার আহ্বান জানিয়েছিলাম- তারা কোনোপ্রকার জবাব দিতে অস্বীকার করেছে।”

ভারত সরকারের পক্ষ থেকে দেশটির প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরো এবং অন্যান্য “ফ্যাক্ট-চেকিং” এজেন্সিগুলোকে “ভুয়া বা মিথ্যা” বলে বিবেচিত সংবাদ সরিয়ে নেয়ার ক্ষমতা প্রদানের পরে বিবিসি ডকুমেন্টারির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়।

এডিটরস গিল্ড অফ ইন্ডিয়া সরকারকে প্রস্তাবটি প্রত্যাহার করার আহ্বান জানিয়ে বলেছে, এই ধরনের পরিবর্তন সেন্সরশিপের সমতুল্য হবে।

XS
SM
MD
LG