অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

অনন্যা সাহিত্য পুরস্কার ১৪২৯ পেলেন সাংবাদিক-লেখক শাহনাজ মুন্নী


বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে, শাহনাজ মুন্নীর হাতে সম্মানজনক অনন্যা সাহিত্য পুরস্কার-১৪২৯ (২০২৩) তুলে দেওয়া হয়। ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩।
বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে, শাহনাজ মুন্নীর হাতে সম্মানজনক অনন্যা সাহিত্য পুরস্কার-১৪২৯ (২০২৩) তুলে দেওয়া হয়। ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২৩।

এবছর অনন্যা সাহিত্য পুরস্কার পেয়েছেন সাংবাদিক ও লেখক শাহনাজ মুন্নী। বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে, শাহনাজ মুন্নীর হাতে শনিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) সম্মানজনক অনন্যা সাহিত্য পুরস্কার-১৪২৯ (২০২৩) তুলে দেওয়া হয়। নারীবিষয়ক ম্যাগাজিন 'অনন্যা' প্রতি বছর এই পুরস্কার প্রদান করে থাকে।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট লেখক আনোয়ারা সৈয়দ হক। বিশেষ অতিথি ছিলেন লেখক-গবেষক হামীম কামরুল হক।সভাপতিত্ব করেন অনন্যা’র সম্পাদক তাসমিমা হোসেন।

তাসমিমা হোসেন বলেন, “অনন্যা সাহিত্য পুরস্কার ১৪২৯ অর্জনের জন্য আমি শাহনাজ মুন্নীকে অভিনন্দন জানাতে চাই। তিনি একজন বিশিষ্ট লেখক এবং আমি বিশ্বাস করি যে তিনি তার কর্মজীবনে দুর্দান্ত সফলতা অর্জন করবেন।” এই অর্জনে আনন্দ প্রকাশ করে শাহনাজ মুন্নি বলেন, “ত্রিশ বছর ধরে আমি লিখছি এবং আমার লেখার ক্যারিয়ারে এটা প্রথম পুরস্কার। আমি এই পুরস্কারের জন্য পাক্ষিক অনন্যার কাছে কৃতজ্ঞ।”

শাহনাজ মুন্নী ১৯৬৯ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি জন্মগ্রহণ করেন। একজন সফল লেখক পরিচয়ের পাশাপাশি তিনি একজন প্রখ্যাত টেলিভিশন সাংবাদিক এবং বর্তমানে নিউজ-২৪-এ প্রধান বার্তা সম্পাদক হিসেবে কাজ করছেন। তার সাহিত্যকর্মের ২৪টি বইয়ের মধ্যে রয়েছে- ‘এলো ক্রুদ্ধ অন্ধকার’, ‘বাদুর ও ব্র্যান্ডি’, ‘তৃতীয় ঘন্টা পড়ার আগেই’, ‘পান সুন্দরী, ‘নির্বাচিত গল্প’ এবং ‘স্নানের শব্দ’।

অনন্য সাহিত্য পুরস্কার প্রবর্তিত হয় ১৯৯৩ সালে। সাহিত্যে অবদানের জন্য প্রতি বছর একজন নারী লেখককে এই পুরস্কার দেওয়া হয়। এর আগে যারা এই পুরস্কার পেয়েছেন, তাদের মধ্যে রয়েছেন; সেলিনা হোসেন, রাবেয়া খাতুন, নিয়াজ জামান, রিজিয়া রহমান, নীলিমা ইব্রাহিম, দিলারা হাশেম, রুবী রহমান, বেগম আকতার কামাল, ঝর্ণা দাশ পুরকায়স্থ, আকিমুন রহমান, নাদিরা মজুমদার।

XS
SM
MD
LG