অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

রাষ্ট্রীয় মালিকানার এসেনসিয়াল ড্রাগসে অর্থ লোপাট, অনুসন্ধানের নির্দেশ হাইকোর্টের


বাংলাদেশের হাইকোর্ট। (ফাইল ছবি)
বাংলাদেশের হাইকোর্ট। (ফাইল ছবি)

বাংলাদেশের একমাত্র রাষ্ট্রীয় মালিকানার ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান এসেনসিয়াল ড্রাগস কোম্পানি লিমিটেড-এর সরকারি অডিটে ৪৭৭ কোটি টাকা লোপাটের অভিযোগ উঠেছে। দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)-কে এই অভিযোগ অনুসন্ধানের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। দুই মাসের মধ্যে অনুসন্ধান করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে নির্দেশে।

এ বিষয়ে সংবাদপত্রে প্রকাশিত প্রতিবেদন নজরে নিয়ে রবিবার (১২ মার্চ) বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি খিজির হায়াতের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেনে। আদেশে এই দুর্নীতির সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে কেন আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়েছে। স্বাস্থ্য সচিব, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালকসহ সংশ্লিষ্টদের চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক। এর আগে শনিবার (১১ মার্চ) একটি জাতীয় দৈনিকে এ বিষয়ে রিপোর্ট প্রকাশিত হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, গত ২০২০-২০২১ অর্থবছরের অডিটে, প্রতিষ্ঠানটিতে ৩২টি গুরুতর অনিয়মে, সরকারের ৪৭৭ কোটি ৪১ লাখ ৯১ হাজার ৩৭৮ টাকার আর্থিক ক্ষতি হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়। প্রাথমিকভাবে ৫১টি আপত্তি তুলেছে অডিট কমিটি। এর মধ্য থেকে যাচাই-বাছাই করে স্বাস্থ্য অডিট অধিদপ্তরের কোয়ালিটি কন্ট্রোল কমিটি ১৯টি আপত্তি বাতিল করে দেয়। বাকি ৩২টিকে গুরুতর আর্থিক অনিয়ম (এসএফআই) হিসেবে চিহ্নিত করা হয়।

এরমধ্যে থেকে ১১টিকে পিএ কমিটির জন্য (সংসদীয় কমিটিতে) পাঠানো হচ্ছে বলে সূত্র জানিয়েছে। পরিচালক ও দলনেতা মোহা. নূরুল আবসারের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের দলটি ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২ থেকে ১০ এপ্রিল ২০২২ পর্যন্ত প্রতিষ্ঠানটি নিরীক্ষা করেন। প্রতিবেদনটি স্বাস্থ্য অডিট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর এআইআর হিসেবে দাখিল করা হয়েছে বলে সূত্র জানায়।

XS
SM
MD
LG