অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

নাইজেরিয়ার পুনর্বাসন কেন্দ্র থেকে উত্তীর্ণ হলো বোকো হারামের ৬০০ সাবেক জঙ্গি


নাইজেরিয়ার বুলাবুলিন গ্রামে জঙ্গি গোষ্ঠী বোকো হারামের সন্দেহভাজন সদস্যদের হামলার পর পুড়ে যাওয়া একটি বাড়ির পাশে বসে আছে গ্রামবাসী; (ফাইল ছবি) ১ নভেম্বর ২০১৮ ।
নাইজেরিয়ার বুলাবুলিন গ্রামে জঙ্গি গোষ্ঠী বোকো হারামের সন্দেহভাজন সদস্যদের হামলার পর পুড়ে যাওয়া একটি বাড়ির পাশে বসে আছে গ্রামবাসী; (ফাইল ছবি) ১ নভেম্বর ২০১৮ ।

নাইজেরিয়ার কর্তৃপক্ষ বলছে, বোকো হারাম গোষ্ঠীর সাবেক যোদ্ধাদের জন্য নেয়া একটি পুনর্বাসন কর্মসূচি, গোষ্ঠীটির লড়াইয়ের ক্ষমতাকে দুর্বল করতে সহায়তা করছে। এই সপ্তাহান্তে প্রায় ৬০০ যোদ্ধা এই কর্মসূচির আওতায় উত্তীর্ণ হয়েছেন এবং তাদের ক্রিয়াকলাপের জন্য প্রকাশ্যে ক্ষমা চেয়েছেন। কর্তৃপক্ষ বলছে, তারা সমাজে পুনরায় একীভূত হবে। তবে বিশেষজ্ঞরা সম্ভাব্য পুনরুত্থানের বিষয়ে সতর্ক করছেন।

বোকো হারামের সাবেক যোদ্ধারা শনিবার উত্তরাঞ্চলীয় গোম্বে রাজ্যের ডি-রেডিকালাইজেশন, রিহ্যাবিলিটেশন অ্যান্ড রিইন্টিগ্রেশন (ডিআরআর) ক্যাম্পে এক গ্র্যাজুয়েশন ( উত্তীর্ণ ) অনুষ্ঠানে সাদা পোশাক পরে নাইজেরিয়ার প্রতি আনুগত্যের শপথ নেন।

অপারেশন সেফ করিডোর নামের ছয় মাসের শারীরিক, মানসিক এবং মনস্তাত্ত্বিক পুনর্বাসন কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া এই বোকো হারাম সদস্যরা স্বেচ্ছায়ে দলত্যাগ করেন। আর দলত্যাগী সদস্যদের এটা সর্বশেষ ব্যাচ।

নাইজেরিয়ার কর্তৃপক্ষ বোকো হারামের মতো সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর লড়াইয়ের ক্ষমতা হ্রাস করার কৌশল হিসাবে, ২০১৬ সালের জুলাই থেকে এই নিরাপদ প্রস্থান কর্মসূচি শুরু করে।

অনুষ্ঠান চলাকালে লাগোস ভিত্তিক টেলিভিশনের সঙ্গে কথা বলেন প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর উচে নাবুইহে। তিনি বলেন, "এই সেবাগ্রহিতারা যে ধরনের থেরাপির মধ্য দিয়ে গিয়েছেন,তার উপর ভিত্তি করে, বলা যায়, ডিআরআর ক্যাম্পে আসার আগের অবস্থা থেকে তারা এখন আরো ভালো নাগরিক। এবং সেই অনুযায়ী তাদের উত্তীর্ণ বলে ঘোষণা দেয়া হয়। পরবর্তীতে তারা তাদের নিজ সম্প্রদায়ের সাথে পুনরায় একীভূত হওয়ার জন্য উপযুক্ত বলে প্রমাণিত হন"।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, উত্তীর্ণ মধ্যে তিনজন নাইজার এবং একজন চাদ থেকে এসেছেন। বাকিদের বেশিরভাগই নাইজেরীয়। তারা বোর্নিও, আদামাওয়া, ইয়োবে, জামফারা,নিজার এবং নাসারাওয়া রাজ্যের বাসিন্দা।

কর্তৃপক্ষ বলছে, ২০১৯ সাল থেকে বোকো হারামের হাজার হাজার অনুতপ্ত সদস্যকে মুক্তি দেয়া হয়েছে এবং তারা সমাজের উৎপাদনশীল সদস্য হয়ে উঠেছেন।

তবে, ২০২১ সালে বোর্নো রাজ্যের গভর্নর বাবাগানা জুলুম এই কর্মসূচি পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, বোকো হারামের সাবেক সদস্যরা সম্প্রদায়গুলোর ওপর গুপ্তচরবৃত্তি করে এবং তারপর আবার এই গোষ্ঠীতে যোগ দেয়।

বোকো হারাম বিদ্রোহের কেন্দ্রবিন্দু বোর্নোর স্থানীয় সম্প্রদায়ও এই কর্মসূচি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে।

সোশ্যাল অ্যাকশন নাইজেরিয়ার প্রতিষ্ঠাতা ভিভিয়ান বেলনউ ব্যাখ্যা করে বলেন, “এই সম্প্রদায়গুলো থেকে ব্যাপকভাবে অপহরণ করা হয়েছে। তাদের নারীরা ধর্ষিত হয়েছেন। কিছু শিশু তাদের বাবা-মাকে এই গোষ্ঠীর সদস্যদের হাতে জবাই হতে দেখেছে। এই বিষয়গুলো, ভুক্তভোগীদের মনে দীর্ঘস্থায়ী প্রভাব ফেলার কারণ হতে পারে। আপনি কিভাবে আশা করেন যে তারা তা ভুলে যাবে?”

রবিবার নাইজেরিয়ার প্রতিরক্ষা কর্তৃপক্ষ জানায়, ২০২১ সালের জুলাই থেকে ২০২২ সালের মে মাসের মধ্যে, প্রায় ৫১ হাজার বোকো হারাম জঙ্গি ও তাদের পরিবারের সদস্য নাইজেরীয় বাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণ করেছে।

XS
SM
MD
LG