অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সাইবার হামলার শিকার লাখ লাখ অস্ট্রেলিয়াবাসী


Iএকজন নারী কীবোর্ডে টাইপ করছেন। ৮ অক্টোবর, ২০১৯। ফাইল ছবি।
Iএকজন নারী কীবোর্ডে টাইপ করছেন। ৮ অক্টোবর, ২০১৯। ফাইল ছবি।

বুধবার অস্ট্রেলিয়ার বৃহত্তম প্রোপার্টি কোম্পানিগুলোর মধ্যে একটি বলেছে, তারা সাইবার অপরাধীদের হামলার শিকার হয়েছে। তারা কর্মচারী এবং অতিথিদের তথ্য চুরি করেছে।

বুধবার অস্ট্রেলিয়ার একটি বৃহত্তম প্রোপার্টি ব্যবসা মেরিটনের কর্মচারীদেরকে সতর্ক করা হয়েছিল যে, সাইবার অপরাধীরা তাদের ব্যাংক একাউন্টের বিশদ তথ্য এবং তাদের বেতন, শাস্তিমূলক ইতিহাস এবং কর্মক্ষমতা মূল্যায়নের বিবরণ চুরি করতে পারে।

প্রায় ২ হাজার মানুষ এই তথ্যচুরির শিকার হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

গত বছর অস্ট্রেলিয়ার বৃহত্তম স্বাস্থ্য বীমাকারী টেলিকম জায়ান্ট অপ্টাস এবং মেডিব্যাঙ্ক-এর লক্ষাধিক গ্রাহকের ব্যক্তিগত তথ্যও চুরি হয়েছিল।

সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ ট্রয় হান্ট অস্ট্রেলিয়ান ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশনকে বলেন, নতুন ব্যবস্থা কার্যকর হতে সময় লাগবে।

গত নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ান ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি দ্বারা প্রকাশিত এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, সাইবার আক্রমণ দেশে দ্রুত বর্ধনশীল অপরাধগুলোর মধ্যে একটি।

২০২২ সালের অক্টোবর মাসে প্রায় সাড়ে ৩ হাজার প্রাপ্তবয়স্ক অস্ট্রেলীয়র ওপর করা এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, ৩২ দশমিক ১ শতাংশ উত্তরদাতা বলেছেন, তারা বা তাদের পরিবারের একজন সদস্য তথ্য চুরির শিকার হয়েছেন।

গবেষণায় দেখা গেছে, তুলনামূলকভাবে অস্ট্রেলীয়দের মধ্যে মাত্র ১০ শতাংশ গত ৫ বছরে চুরি বা হামলার মতো গুরুতর অপরাধের শিকার হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ান ট্যাক্স অফিস অক্টোবরে প্রকাশ করেছে যে, প্রতি মাসে ৩ লাখ বার তাদের সিস্টেম হ্যাক করার চেষ্টা করা হয়।


XS
SM
MD
LG