অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সিঙ্গাপুরের দু'টি স্যাটেলাইটকে পৃথিবীর কক্ষপথে প্রেরণ করল ইসরো


সিঙ্গাপুরের দুটি কৃত্রিম উপগ্রহকে পৃথিবীর কক্ষপথে প্রেরণ করল ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা। ইসরো-র এখন সবচেয়ে বড় লক্ষ্য সূর্য-অভিযান। ২২ এপ্রিল, ২০২৩।
সিঙ্গাপুরের দুটি কৃত্রিম উপগ্রহকে পৃথিবীর কক্ষপথে প্রেরণ করল ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা। ইসরো-র এখন সবচেয়ে বড় লক্ষ্য সূর্য-অভিযান। ২২ এপ্রিল, ২০২৩।

ইন্ডিয়ান স্পেস রিসার্চ অর্গানাইজেশন সংক্ষেপে ইসরো-র হাত ধরে মহাকাশে আবারও ইতিহাস গড়ল ভারত। সিঙ্গাপুরের দুটি কৃত্রিম উপগ্রহকে পৃথিবীর কক্ষপথে প্রেরণ করল ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা। TeLEOS-2 এবং LUMELITE-4 নামে দুটি স্যাটেলাইটের সফল উৎক্ষেপণ হয়েছে ২২ এপ্রিল। শনিবার ঠিক দুপুর ২টো বেজে ১৯ মিনিটে শ্রীহরিকোটার সতীশ ধবন স্পেস সেন্টার থেকে সফলভাবে কক্ষপথে স্থাপন করা হয়েছে দুটি কৃত্রিম উপগ্রহকে। পিএসএলভি-সি৫৫ রকেটে চাপিয়ে উপগ্রহ দুটিকে মহাকাশে পাঠানো হয়েছে।

ইসরো-র এই নতুন অভিযানের আয়োজক নিউ স্পেস ইন্ডিয়া লিমিটেড। সিঙ্গাপুরের উপগ্রহ দু'টির ওজন যথাক্রমে ৭৪১ কিলোগ্রাম ও ১৬ কিলোগ্রাম। সিঙ্গাপুর সরকারের সঙ্গে চুক্তির ভিত্তিতে ওই দুটি স্যাটেলাইটকে মহাকাশে পাঠিয়েছে ভারতের ইসরো।

ইসরো-র বিজ্ঞানীরা বলছেন, সামুদ্রিক নিরাপত্তা এবং আবহাওয়ার খবরাখবর দেবে উপগ্রহ দু'টি। এই উৎক্ষেপণের পর কক্ষপথে পাঠানো বিদেশি উপগ্রহের সংখ্যা বেড়ে হল ৪২৪। দুটি উপগ্রহের মিলিত ওজন প্রায় ৭৫৭ কিলোগ্রাম। TeLEOS-2 মহাকাশ থেকে এমন ছবি পাঠাবে যাতে পৃথিবীর আবহাওয়া, জলবায়ু বদলের পূর্বাভাস পাওয়া যায়। তাছাড়া সামুদ্রিক নিরাপত্তা ও প্রতিরক্ষা, বিমান দুর্ঘটনা অনুসন্ধান ও উদ্ধার অভিযানেও সাহায্য করবে ওই দুটি উপগ্রহ।

ইসরো-র এখন সবচেয়ে বড় লক্ষ্য সূর্য-অভিযান। সূর্যের দেশের থেকে নিরাপদ দূরত্ব রেখে হবে মাপজোক, গবেষণা। ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরো সৌর-মুলুকে যাকে পাঠাচ্ছে তাকে নিয়ে চর্চা ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে। আদিত্য এল-১ সর্বাধুনিক এই সৌরযান পাঠানো হবে সূর্য অভিযানে। তারই প্রস্তুতি চলছে জোরকদমে। এই অভিযান সফল হলে, মহাকাশবিজ্ঞানের ইতিহাসে পাকাপাকি ভাবে সেরার শিরোপাটা ছিনিয়ে নেবে ভারত। ইসরো জানিয়েছে, পৃথিবী থেকে ১৫ লক্ষ কিলোমিটার দূরে সূর্য ও পৃথিবীর মাঝের এক কক্ষপথ ‘ল্যাগরাঞ্জিয়ান পয়েন্ট’ বা ‘ল্যাগরেঞ্জ পয়েন্ট’-এ ল্যান্ড করবে স্যাটেলাইট আদিত্য এল-১। সূর্যের বাইরের সবচেয়ে উত্তপ্ত স্তর করোনার যাবতীয় তথ্য সে তুলে দেবে আমাদের হাতে। এই সোলার-মিশন তাই সবদিক দিয়েই খুব গুরুত্বপূর্ণ।

XS
SM
MD
LG