অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ভারতে মহারাষ্ট্রে জোট সরকারের পতনে রাজ্যপালকে তীব্র ভর্ৎসনা সুপ্রিম কোর্টের


ভারতের সুপ্রিম কোর্ট ভবন - ফাইল ফটো- এপি
ভারতের সুপ্রিম কোর্ট ভবন - ফাইল ফটো- এপি

ভারতের মহারাষ্ট্রে শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরের নেতৃত্বে জোট সরকারের পতন নিয়ে রাজ্যপাল ভগৎ সিং কোশিয়ারির ভূমিকাকে ভর্ৎসনা করল দেশের সুপ্রিম কোর্ট। সুপ্রিম কোর্টের পাঁচ বিচারপতি তাঁদের রায়ে বৃহস্পতিবার ১১ মে বলেছেন, রাজ্যপাল যেভাবে অনাস্থা ভোট ডেকে দিয়েছিলেন, তার কোনও যুক্তিই ছিল না। ক্ষমতাসীন সরকারের বিরুদ্ধে শাসক দলের হাতেগোনা কিছু বিধায়কের বিদ্রোহ ঘোষণা করা, অনাস্থা ভোট ডাকার জন্য যথেষ্ট কারণ নয়।

সুপ্রিম কোর্টে উদ্ধব ঠাকরেদের দায়ের করা মামলার এদিন চূড়ান্ত নিষ্পত্তি হয়নি। তা বৃহত্তর বেঞ্চের দিকে ঠেলে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। তবে সর্বোচ্চ আদালত জানিয়েছে, আপাতত স্থিতাবস্থা থাকবে। অর্থাৎ একনাথ শিন্ডে সরকার বহাল থাকবে। কারণ, উদ্ধব ঠাকরে ইস্তফা দিয়েছেন। তিনি যদি ইস্তফা না দিয়ে দিতেন তা হলে তাঁকে মুখ্যমন্ত্রী পদে ফের বসানোর ব্যাপারে পদক্ষেপ করতে পারত সর্বোচ্চ আদালত। কিন্তু তিনি ইস্তফা দিয়ে দেওয়ায় তা আর সম্ভব নয়।

সুপ্রিম কোর্ট এদিনের রায়ে জানিয়েছে, একনাথ শিন্ডে-সহ ১৫ জন বিধায়ককে স্রেফ দলের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করার জন্য বরখাস্তও করা যাবে না।

তবে মহারাষ্ট্রে সরকারের নেপথ্যে যে রাজ্যপালের বড় ভূমিকা ছিল এদিন সুপ্রিম কোর্টের রায়ে তা বারবার স্পষ্ট হয়েছে। উদ্ধব ঠাকরের হয়ে আদালতে সওয়াল করেছেন কপিল সিব্বল ও অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি। অন্যদিকে একনাথ শিন্ডের হয়ে সওয়াল করেছিলেন মহেশ জেঠমালানি ও হরিশ সালভে। মামলা শোনার পর এদিন রায় ঘোষণা করেছে প্রধান বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড়ের নেতৃত্বে পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চ।

সর্বোচ্চ আদালতের এই রায়ের পর প্রাথমিক ভাবে খুশি উদ্ধব শিবির। কারণ, তাঁরা মনে করছেন, এতে নৈতিক জয় হয়েছে তাঁদের। উদ্ধব শিবিরের বক্তব্য, মুখ্যমন্ত্রীর পদ সর্বোচ্চ আদালত যে এখনই ফেরাবে না তা ধরে নেওয়া হয়েছিল। তাঁরা মনে করছেন, মহারাষ্ট্রে শিবসেনা, কংগ্রেস এবং এনসিপি সরকারকে যে ষড়যন্ত্র করে ফেলে দেওয়া হয়েছে তা ফের স্পষ্ট হয়ে গেল, যাতে যুক্ত ছিলেন রাজ্যপাল ভগৎ সিং কোশিয়ারি।

উদ্ধব শিবিরের মুখপাত্র সঞ্জয় রাউতের কথায়, "বিজেপি এভাবেই রাজ্যে রাজ্যে রাজ্যপাল বসিয়ে সংবিধান ও গণতন্ত্রকে হত্যা করছে। রাজভবনে রাজনীতির খেলায় মেতে থাকছেন রাজ্যপালরা। সর্বোচ্চ আদালত যে ভর্ৎসনা করেছে তা আসলে বিজেপির গালে থাপ্পড়।"

XS
SM
MD
LG