অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাসের বাজেট বরাদ্দ ব্যয় নয়, বিনিয়োগ: প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান


প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান
প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান

বাংলাদেশের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান বলেছেন, “দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাসে দেয়া বাজেট বরাদ্দ কোনো ব্যয় নয়, বিনিয়োগ। বৃহস্পতিবার (১৮ মে) নিউইয়র্কে অবস্থিত জাতিসংঘের সদর দপ্তরে, দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাস সম্পর্কিত এক উচ্চ পর্যায়ের আন্তর্জাতিক বৈঠকে তিনি এ কথা বলেন।

বাংলাদেশর ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী বলেন, “দুর্যোগের ঝুঁকি কমাতে, বাংলাদেশের জাতীয় বাজেটের ১১ শতাংশ বরাদ্দ দেয়া হয়। বলেন, “দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাস কৌশলটি, বাংলাদেশের দুর্যোগ সংক্রান্ত স্থায়ী আদেশ এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার জন্য জাতীয় পরিকল্পনা ২০২১-২০২৫ এ অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।”

আন্তর্জাতিক বৈঠকের প্রথম দিনে, প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে নিজেদের অর্জন, চ্যালেঞ্জ ও ভবিষ্যত প্রতিশ্রুতি তুলে ধরেন। দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাসে বিনিয়োগকে তিনি ব্যয় হিসেবে মনে করেন না বলে উল্লেখ করেন। তিনি দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশের কার্যক্রম এবং গত ৭ বছর জাতীয় বাজেটের ৮ দশমিক ৮ শতাংশ দুর্যোগ ঝুঁকি হ্রাস খাতে সরকারের বরাদ্দ দেয়ার বিষয়টি উল্লেখ করেন।

প্রতিমন্ত্রী জানান, “করোনা মহামারীর ভেতর বাংলাদেশ ২০২০ সালে পাঁচবার বন্যা ও ঘূর্ণিঝড় আম্ফান-এর মতো দুর্যোগকে দক্ষতার সঙ্গে সামাল দিয়েছে।” এনামুর রহমান বলেন, “ভয়াবহ প্রাকৃতিক দুর্যোগে ২০০৭ সালে মৃত্যুর হার ছিল ৩ দশমিক ১০ শতাংশ। ২০২০ সালে সেটি উল্লেখযোগ্যভাবে কমে শূন্য দশমিক ২০ শতাংশে গিয়ে ঠেকেছে। ২০০৫ থেকে ২০১৫ সালের তুলনায়, ২০১৬ থেকে ২০২০ সালের মধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সংখ্যা এবং বাসস্থানের ক্ষয়ক্ষতি উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পেয়েছে।”

বৈঠকে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান ৫ সদস্যের বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

XS
SM
MD
LG