অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

যুক্তরাষ্ট্রের নেতারা আইনপ্রণেতাদের প্রতি ঋণ সীমা চুক্তি অনুমোদন করার আহ্বান জানিয়েছেন


প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন হোয়াইট হাউসে যুক্তরাষ্ট্রের ঋণ সীমা বৃদ্ধি নিয়ে কথা বলছেন। ২৮ মে, ২০২৩।
প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন হোয়াইট হাউসে যুক্তরাষ্ট্রের ঋণ সীমা বৃদ্ধি নিয়ে কথা বলছেন। ২৮ মে, ২০২৩।

যুক্তরাষ্ট্রের আইনপ্রণেতারা প্রত্যাশিত ভোটের আগে দেশের ঋণের সীমা বৃদ্ধির জন্য একটি চুক্তি বিশদভাবে পরীক্ষা করছেন। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং হাউস স্পিকার কেভিন ম্যাকার্থি উভয়েই তাদেরকে এটি অনুমোদন করার আহ্বান জানিয়েছেন।

প্রস্তাবের মধ্যে রয়েছে, ২০২৫ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত বিদ্যমান ৩১ দশমিক ৪ ট্রিলিয়ন ঋণের সীমা মওকুফ করা এবং দুই বছরের একটি বাজেট চুক্তি যা অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া অর্থ বছরে ফেডারেল ব্যয়কে সমান রাখে এবং পরবর্তী ১২ মাসে ২০২৫ সালে এটি ১ শতাংশ বৃদ্ধি করে।

সমঝোতা প্যাকেজের অন্যান্য অংশগুলোর মধ্যে রয়েছে দেশের কর সংগ্রহ সংস্থায় আরও এজেন্ট নিয়োগে হ্রাস। এই পদক্ষেপ নেয়া হয় যাতে রাজ্যগুলো ফেডারেল সরকারকে অব্যবহৃত করোনা ভাইরাস মহামারী সহায়তার ৩ হাজার কোটি ডলার ফেরত দেয় এবং খাদ্য সহায়তা পাওয়ার জন্য কাজ করতে হয় এমন ব্যক্তিদের জন্য বয়স সীমা ৫০ থেকে ৫৪-তে উন্নীত করে।

বাইডেন এবং ম্যাকার্থি কয়েক সপ্তাহের আলোচনার পরে শনিবার শেষের দিকে চুক্তিতে পৌঁছান।

ঋণের সর্বোচ্চ সীমা না বাড়ালে জুনের শুরুতে বিল পরিশোধের জন্য সরকারের অর্থ ফুরিয়ে যাবে।

দুই নেতা চুক্তির প্রতি সমর্থন প্রকাশ করলে পার্টির মতাদর্শগত বামপন্থী প্রগতিশীল ডেমোক্র্যাট আইনপ্রণেতা এবং ডানপন্থী রিপাবলিকানরা ত্বরিত তাদের বিরোধিতার কথা জানান।

অর্থমন্ত্রী জ্যানেট ইয়েলেন কংগ্রেসকে সতর্ক করেছিলেন যে ঋণের সীমা বৃদ্ধি করা প্রয়োজন যাতে সরকার আরও অর্থ ধার করতে পারে, নতুবা ৫ জুন যুক্তরাষ্ট্র সরকারের কাছে বিদ্যমান বিল পরিশোধের জন্য নগদ অর্থের অভাব হবে।

এই প্রতিবেদনের কিছু তথ্য এপি, এএফপি এবং রয়টার্স থেকে নেয়া হয়েছে।

XS
SM
MD
LG