অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

দিল্লিতে বৃহস্পতিবার বেসরকারি উদ্যোগে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ-ভারত কৌশলগত সংলাপ


দিল্লিতে বৃহস্পতিবার বেসরকারি উদ্যোগে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ-ভারত কৌশলগত সংলাপ
দিল্লিতে বৃহস্পতিবার বেসরকারি উদ্যোগে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ-ভারত কৌশলগত সংলাপ

ভারতের থিংকট্যাংক অংশীদারদের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় আলোচনা করার দীর্ঘকালের ঐতিহ্যের ওপর ভিত্তি করে বাংলাদেশের বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) একটি প্রতিনিধিদল ২২-২৩ জুন দিল্লিতে অনুষ্ঠিত ‘ভারত-বাংলাদেশ কৌশলগত সংলাপে’ যোগদান করবে।

আলোচনাটি যৌথভাবে আয়োজন করছে বাংলাদেশের সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ এবং ভারতের অনন্ত অ্যাস্পেন সেন্টার (দিল্লি)। এটি একটি ট্র্যাক-টু (বেসরকারি) উদ্যোগ বলে জানিয়েছে সুশীল সমাজের থিঙ্কট্যাংক।

সিপিডি-অনন্ত অ্যাস্পেন সহযোগিতার অধীনে এটি দ্বিতীয় সংলাপ। প্রথমটি ২০২২ সালের ১৮ মে অনলাইনে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সিপিডি ভারতে তার অংশীদারদের সঙ্গে বছরের পর বছর ধরে এই ধরনের ১৬টি সংলাপের আয়োজন করেছে। ঢাকা ও দিল্লিতে পালাক্রমে সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়।

দিল্লিতে সিপিডি-অনন্ত অ্যাস্পেনের আসন্ন সংলাপে কৌশলগত এবং সমসাময়িক প্রাসঙ্গিকতার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বিষয়গুলোর একটি পরিসর নিয়ে আলোচনা করা হবে।

অংশগ্রহণকারীরা পানি বন্টন, সড়ক, রেল, পানি, উপকূলীয় শিপিং, জ্বালানি ও ডিজিটাল সংযোগসহ বাহুমাত্রিক সংযোগের বিষয়ে সুচিন্তিত বক্তব্য দেবেন।

সিপিডির সূত্র অনুসারে, আর্থিক সহযোগিতা এবং প্রযুক্তি স্থানান্তরের মতো অভিনব ক্ষেত্রগুলোতে দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতা অন্বেষণ করা হবে।

উদীয়মান ভূ-কৌশলগত পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের বিবর্তনও মূল্যায়ন করা হবে।

এটা প্রত্যাশিত যে, একটি সময়ে যখন দুই দেশ গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে দাঁড়িয়ে আছে এবং জাতীয় নির্বাচনের দিকে যাচ্ছে, এই সংলাপটি ভারত-বাংলাদেশ দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ককে কীভাবে পুনর্গঠিত করা যায় এবং উভয় দেশ ও তাদের মানুষের আশা-আকাঙ্ক্ষা পূরণের উপায়ে পুনর্গঠন করা যায় তা নিয়ে আলোচনা করার একটি সুযোগ হবে।

দিল্লিতে সংলাপে দুই দেশের উচ্চ-পর্যায়ের নীতিনির্ধারক, বিশেষজ্ঞ ও অংশীদারেরা মিলিত হবেন।

বাংলাদেশের পক্ষ থেকে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে রয়েছেন: সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুন, সিপিডির বিশিষ্ট ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য ও অধ্যাপক মুস্তাফিজুর রহমান, বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের সাবেক নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) সাখাওয়াত হোসেন, বাংলাদেশ সরকারের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাবেক সিনিয়র সচিব মো. শহীদুল হক; ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. আমেনা মহসিন; বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট)অধ্যাপক ড. এম তামিম এবং বাংলাদেশ-থাই চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি শামস মাহমুদ।

XS
SM
MD
LG