অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সেন্ট্রাল হাসপাতালের চিকিৎসক মাকসুদা ফরিদা আক্তারকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ হাইকোর্টের


সেন্ট্রাল হাসপাতালের চিকিৎসক মাকসুদা ফরিদা আক্তারকে আত্মসমর্পণের নির্দেশ হাইকোর্টের

বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার গ্রিন রোডে অবস্থিত সেন্ট্রাল হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় নবজাতক ও মায়ের মৃত্যুর ঘটনায় দায়ের করা মামলায় চিকিৎসক মাকসুদা ফরিদা আক্তার মিলিকে চার সপ্তাহের মধ্যে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছেন বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগ।

বুধবার (৫ জুলাই) বিচারপতি মো. জাকির হোসেন ও বিচারপতি বিশ্বজিত দেবনাথের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সুজিত চ্যাটার্জি বাপ্পী বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে মঙ্গলবার (৪ জুলাই) সেন্ট্রাল হাসপাতালে ভুল চিকিৎসায় নবজাতক ও মায়ের মৃত্যুর ঘটনায় দায়ের করা মামলায় হাইকোর্টে আগাম জামিন চেয়ে আবেদন করেন ডা. মাকসুদা ফরিদা আক্তার মিলি।

জানা যায়, সেন্ট্রাল হাসপাতালের অধ্যাপক ডা. সংযুক্তা সাহার (গাইনি) অধীনে গত ৯ জুন ভর্তি হয়েছিলেন মাহাবুবা রহমান আঁখি। কিন্তু সেদিন ডা. সংযুক্তা হাসপাতালে ছিলেন না। পরে তার দুই সহযোগী চিকিৎসক আঁখির সন্তান প্রসব করানোর চেষ্টা করেন। জটিলতা দেখা দেওয়ায় নবজাতককে এনআইসিইউতে রাখা হয়। একই সঙ্গে আঁখির অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে পার্শ্ববর্তী ল্যাবএইড হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

পরে গত ১০ জুন বিকেলে আঁখির নবজাতক সন্তান মারা যায়। এ ঘটনায় আঁখির স্বামী ইয়াকুব আলী ধানমন্ডি থানায় অবহেলাজনিত মৃত্যুর একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় ডা. শাহজাদী মুস্তার্শিদা সুলতানা, ডা. মুনা সাহা, ডা. মাকসুদা ফরিদা আক্তার মিলি এবং সহকারী জমির, এহসান ও হাসপাতালের ম্যানেজার পারভেজকে অভিযুক্ত করা হয়।

এ ছাড়াও, অজ্ঞাতপরিচয় আরও কয়েকজনকেও অভিযুক্ত করা হয়েছে। মামলা দায়েরের পর ১৫ জুন রাতে ডা. শাহজাদী ও ডা. মুনা সাহাকে হাসপাতাল থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

১৮ জুন দুপুর ১টা ৪৩ মিনিটে ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান মাহবুবা রহমান আঁখিও।

ওই মামলায় জামিন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন ডা. মাকসুদা ফরিদা আক্তার মিলি।

XS
SM
MD
LG