অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইয়েলেনের চীন সফর: আলোচনায় প্রাধান্য পেয়েছে স্থিতিশীল সম্পর্ক


চীনের বেইজিং ক্যাপিটাল ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট-এ পৌঁছেছেন যুক্তরাষ্ট্রের অর্থমন্ত্রী জ্যানেট ইয়েলেন; ৬ জুলাই ২০২২।
চীনের বেইজিং ক্যাপিটাল ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট-এ পৌঁছেছেন যুক্তরাষ্ট্রের অর্থমন্ত্রী জ্যানেট ইয়েলেন; ৬ জুলাই ২০২২।

চীনের বেইজিং-এ শুক্রবার আমেরিকান চেম্বার অফ কমার্সে বক্তৃতা করেন যুক্তরাষ্ট্রের অর্থমন্ত্রী জ্যানেট ইয়েলেন এ সময় তিনি বলেন, “যুক্তরাষ্ট্র আমাদের অর্থনৈতিক শক্তিগুলোর মধ্যে সামগ্রিক বিচ্ছেদ চায় না।... বিশ্বের বৃহত্তম দুটি অর্থনীতির বিচ্ছিন্নতা বিশ্ব অর্থনীতির জন্য অস্থিতিশীলতা বয়ে আনবে এবং এমন বিচ্ছিন্নতা কার্যত অসম্ভব।”

শুক্রবার শেষ বেলায় ইয়েলেন বেইজিং-এ চীনের প্রধানমন্ত্রী লি চিয়াং এবং অন্যান্য চীনা কর্মকর্তাদের সাথে সাক্ষাৎ করবেন বলে আশা করা হচ্ছে। বৈঠকে তিনি দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনাপূর্ণ সম্পর্ককে সহজতর করতে চেষ্টা করবেন।

তিনি বৃহস্পতিবার বেইজিং-এ পৌঁছেছেন।

ইয়েলেন বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন “তার প্রশাসনকে আমাদের দুই দেশের মধ্যে বিভিন্ন বিষয়ে যোগাযোগ বৃদ্ধির জন্য দায়িত্ব দিয়েছেন। আর, আমি আমার সফরে তা করার অপেক্ষায় রয়েছি।”

গত মাসে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেনের বেইজিং সফরের পর, ইয়েলেনের এই সফর সম্পন্ন হচ্ছে। রবিবার এই সফর শেষ হবে।

ইয়েলেন এই সপ্তাহের শুরুতে যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত চীনের রাষ্ট্রদূত শিয়ে ফেং-এর সাথে সাক্ষাৎ করেছেন। অর্থ মন্ত্রক বলেছে, সেখানে ইয়েলেন “উদ্বেগের নানা দিক উত্থাপন করেন এবং একই সাথে সামষ্টিক অর্থনীতি ও আর্থিক ব্যবস্থাপনার বিষয়গুলো সহ বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায়, দুটি বৃহত্তম অর্থনীতির এক সাথে কাজ করার গুরুত্ব তুলে ধরেন।”

চীনের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, শিয়ে আশা প্রকাশ করেছেন যে দুই দেশ পারস্পরিক বিষয়ে হস্তক্ষেপ পরিহার করবে এবং আলাপ-আলোচনা জোরদার করবে।

এই প্রতিবেদনের কিছু তথ্য এপি, এএফপি এবং রয়টার্স থেকে নেয়া হয়েছে।

XS
SM
MD
LG