অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ভারতে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের জন্য অষ্টম বেতন কমিশন অনিশ্চিত, জানাল কেন্দ্র সরকার


ভারতে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের জন্য অষ্টম বেতন কমিশন অনিশ্চিত, জানাল কেন্দ্র সরকার
ভারতে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের জন্য অষ্টম বেতন কমিশন অনিশ্চিত, জানাল কেন্দ্র সরকার
ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের জন্য অষ্টম বেতন কমিশন গঠনের কোনও পরিকল্পনা এখনই নেই বর্তমান কেন্দ্রীয় সরকারের। কেন্দ্রের অর্থ প্রতিমন্ত্রী পঙ্কজ চৌধুরী সংসদে এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, কর্মচারী ও পেনশনভোগীদের বেতন ও পেনশন বৃদ্ধির কাঠামো বদলের কোনও ভাবনা এই মুহূর্তে সরকারের নেই। যদিও সরকারের অন্য একটি সূত্র ইঙ্গিত করেছে, লোকসভা ভোটের আগে আগে সরকার এই বিষয়ে ইতিবাচক খবর শোনাতে পারে। এছাড়া বিজেপির নির্বাচনী ঘোষণাপত্রেও আকর্ষণীয় প্রতিশ্রুতির কথা শোনাতে পারে দল। রাজনৈতিক মহল মনে করছে, সম্ভবত সেই কারণেই গুরুত্বপূর্ণ কিন্তু স্পর্শকাতর ঘোষণাটি অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমনকে দিয়ে না করিয়ে অর্থ প্রতিমন্ত্রীকে দিয়ে করানো হয়েছে।
প্রসঙ্গত ২০১৪ সালে গঠিত হয়েছিল সপ্তম বেতন কমিশন। সেই কমিশনের সুপারিশ কার্যকর হয় ২০১৬ সালে। নিয়ম হল, দশ বছর অন্তর নতুন বেতন কমিশন গঠন করা হবে। তবে তারজন্য এক বছর আগেই প্রস্তুতি শুরু করতে হয়। এবার সরাকারি স্তরে কোনও উদ্যোগ এখনও শুরু হয়নি। অর্থ প্রতিমন্ত্রীও জানিয়েছেন, সরকারের ভাবনায় এখন অষ্টম বেতন কমিশন নেই।

উল্লেখ্য, ভারতে বেতন কমিশন সময় ও কাজের গুরুত্ব বিচার করে বেতন কাঠামো বদলের সুপারিশ করে থাকে। সেই সঙ্গে বিশেষ ভাতা ইত্যাদির বিষয়েও সুপারিশ করে থাকে কমিশন। তবে সরকারের আর্থিক পরিস্থিতি বিবেচনায় রেখেই তাদের সুপারিশ করতে হয়।

যদিও কমিশনের সুপারিশ সরকার মানতে বাধ্য নয়। তেমনই প্রতি দশ বছর অন্তর বেতন কমিশন গঠনেও সরকার বাধ্য নয়। যদিও এটাই রীতি। একই ভাবে রাজ্য সরকারগুলিও তাদের কর্মচারীদের জন্য বেতন কমিশন গঠন করে। যেমন, পশ্চিমবঙ্গে রাজ্য সরকারী কর্মচারীরা এখন ষষ্ঠ বেতন কমিশনের সুপারিশ মেনে বেতন পাচ্ছেন।

কেন্দ্রীয় কর্মচারীদের ক্ষেত্রে নতুন বেতন কমিশন গঠন না করে সরকার নিজেই নতুন বেতন কাঠামো তৈরি করতে পারে, এমন আভাসও দিয়েছেন কেন্দ্রের অর্থ প্রতিমন্ত্রী। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, করোনা পরবর্তী আর্থিক পরিস্থিতির কথা বিবেচনায় রেখে বেতন কমিশন সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত সরকার এড়িয়ে যাচ্ছে। তবে ভোটের অঙ্কে সিদ্ধান্ত বদলও হতে পারে।

XS
SM
MD
LG