অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আগামী ৫০ বছরে বাংলাদেশকে ভূমিকম্প সহনীয় রাষ্ট্রে পরিণত করা হবে—প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান


বাংলাদেশের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান।
বাংলাদেশের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান।

আগামী ৫০ বছরে বাংলাদেশকে ভূমিকম্প সহনীয় রাষ্ট্রে পরিণত করা হবে উল্লেখ করেছেন বাংলাদেশের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান। তিনি বলেন, “জাপানের মতো দেশকে ভূমিকম্প সহনীয় দেশে পরিণত করতে ৩০ বছর লেগেছে। সেখানে আমরা চেষ্টা করছি অন্তত ৫০ বছরে হলেও যেন বাংলাদেশ ভূমিকম্প সহনীয় দেশে পরিণত করা যায়। সে লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার”।

বুধবার (২৩ অগাস্ট) রাজধানী ঢাকার গুলশানে এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

এনামুর রহমান বলেন, বাংলাদেশ ভূমিকম্প মোকাবিলায় এখনো পর্যাপ্ত সক্ষমতা অর্জন করতে পারেনি। দেশে ৭ মাত্রার ভূমিকম্প হলে ঢাকায় মারা যাবে দেড় লাখ মানুষ। আর হতাহত হবে প্রায় ৫ লাখ মানুষ। ১ লাখ ৭২ হাজার বাড়িঘর ধ্বংস হবে।

ঢাকার ঝুঁকিপূর্ণ ও শত বছরের বেশি পুরোনো ভবনগুলো পর্যায়ক্রমে ভেঙে ফেলা হবে জানিয়ে এনামুর রহমান বলেন, বিল্ডিং কোড ছাড়া নতুন করে কোনো ভবন নির্মাণ করতে দেওয়া হবে না। জাইকা'র সহযোগিতায় নতুন করে ভূমিকম্প সহনীয় ভবন নির্মাণ করা হবে।

এনামুর রহমান বলেন, ভূমিকম্প সহনীয় দেশ হিসেবে বাংলাদেশ গড়তে আমরা কাজ করছি। এ ক্ষেত্রে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও গণমাধ্যমের ভূমিকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। দুর্যোগের ঝুঁকি কমানোর সুফল আমরা পাচ্ছি। ইতিমধ্যে দুর্যোগের ঝুঁকি হ্রাস করতে পোশাক খাতে ব্যাপক পরিবর্তন সাধিত হয়েছে। ‘সরকার ইতিমধ্যে ৮টি জোনে ভাগ করে ঢাকাকে ভূমিকম্প সক্ষমতা তৈরি করার প্রকল্প হাতে নিয়েছে। জাইকার সহযোগিতায় ভূমিকম্প সহনীয় ভবনের ওপর সার্ভে করা হয়েছে। জাপান সর্বাত্মক সহযোগিতা করছে।

এনামুর রহমান বলেন, জাপানের আর্থিক ও জাইকার কারিগরি সহযোগিতায় নতুন ভবন নির্মাণ করা হবে। এ জন্য বেসরকারিভাবে প্রকৌশলী নিয়োগ দেওয়া হবে। শুধু ভবন নয়, নতুন সব সেতুও নির্মাণ করা হবে ভূমিকম্প সহনীয় সক্ষমতায়।

এনামুর রহমান বলেন, ভূমিকম্প মোকাবিলায় আসলে আমাদের খুব বেশি সক্ষমতা নেই। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় সাফল্যের জন্য আমাদের অর্জন আছে, অ্যাওয়ার্ড পেয়েছি। বন্যা, ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় আমরা শতভাগ সফল। আমরা ৪২০ কোটি টাকার উদ্ধার ও অনুসন্ধান কাজের উপকরণ কিনেছি। সেগুলো ফায়ার সার্ভিস, সিটি করপোরেশন ও সেনাবাহিনীকে দেওয়া হয়েছে।

XS
SM
MD
LG