অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

কিছু লোক নিজেদের জনগণের অভিভাবক মনে করেন—সংসদে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক


আইনমন্ত্রী আনিসুল হক
আইনমন্ত্রী আনিসুল হক

বাংলাদেশের আইনমন্ত্রী আনিসুল হক অভিযোগ করে বলেছেন, সুশীল সমাজের সদস্য বলে দাবি করা কিছু লোক নিজেদের জনগণের অভিভাবক মনে করেন। তবে জনগণের সঙ্গে তাদের কতটা সম্পৃক্ততা রয়েছে তা নিয়ে সন্দেহ রয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আনিসুল হক বলেন, তারা বিভিন্ন নির্দেশনা দেয়। তারা দেশের উত্তর, দক্ষিণ, পূর্ব বা পশ্চিম দিকে তাকান না। তারা শুধু সুদূর পশ্চিম দিকে তাকান। ওখান থেকে আসা কথাগুলো তারা এখানে প্রকাশ করার চেষ্টা করেন।

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদে বুধবার (১৩ সেপ্টেম্বর) জাতীয় সংসদ (সংরক্ষিত মহিলা আসন) নির্বাচন (সংশোধন) বিল ২০২৩–এর ওপর আলোচনাকালে এসব কথা বলেন তিনি।

এর আগে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য রুস্তম আলা ফরাজী বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে বিভিন্ন মতামত দেওয়ায় সুশীল সমাজের কঠোর সমালোচনা করেন।

আনিসুল হক রুস্তম আলী ফরাজীর বক্তব্যের সঙ্গে একমত পোষণ করে বলেন, বাংলাদেশ স্বাধীন ও সার্বভৌম। কারা সংসদে প্রতিনিধিত্ব করবে তা নির্বাচনের মাধ্যমে এ দেশের জনগণ সিদ্ধান্ত নেবে।

আনিসুল হক বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অবাধ, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। বর্তমান সংসদের মেয়াদ শেষ হলে প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

তিনি বলেন, গত সপ্তাহে সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে দায়ের করা রিভিউ পিটিশনের ওপর শুনানি হয়েছে। হাইকোর্টের ছুটির পর আবার শুনানি হবে। এখন বিচারকদের পদত্যাগের কোনো বিধান নেই।

জাতীয় পার্টির রুস্তম আলী ফরাজী বলেন, দেশে অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন দরকার।

তিনি বলেন, “আমাদের প্রতিষ্ঠান আছে। আমরা টিএন সেশনের (ভারতের প্রাক্তন সিইসি) মতো একটি শক্তিশালী নির্বাচন কমিশন আশা করি। … নির্বাচনের সময় সরকার নিয়মিত দায়িত্ব পালন করে। আমাদের দেশের বুদ্ধিজীবী ও সুশীল সমাজ বারবার সংসদের অক্ষমতা ও সংসদের অকার্যকারিতা নিয়ে কথা বলছেন”।

রুস্তম আলী ফরাজী বলেন, এমন হলে নির্বাচনের কোনো প্রয়োজন নেই। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ভারতের নির্বাচন নিয়ে কেউ কখনো প্রশ্ন তোলেনি। “তাহলে আজকের বাংলাদেশ নিয়ে প্রশ্ন আসবে কেন? বাংলাদেশে নির্বাচন সঠিক পথেই চলছে। এটা ভালোভাবে হবে”।

XS
SM
MD
LG