অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ককে গুরুত্ব দেয় যুক্তরাষ্ট্র: ম্যাথিউ মিলার


যুক্তরাষ্ট্র পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রেস ব্রিফিং
যুক্তরাষ্ট্র পররাষ্ট্র দপ্তরের প্রেস ব্রিফিং

যুক্তরাষ্ট্র পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার বৃহস্পতিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) নিয়মিত প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেছেন, “বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ককে গুরুত্ব দেয় যুক্তরাষ্ট্র।” তিনি বলেন, “আশা করা হচ্ছে; বাংলাদেশ সরকার যুক্তরাষ্ট্রসহ দেশে অবস্থানরত সব বিদেশি মিশন ও কর্মীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।”

ম্যাথিউ মিলার জানান, তিনি ঢাকায় অবস্থিত যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস বা বাংলাদেশে কর্মরত কর্মীদের নিরাপত্তা নিয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো আলোচনা করবেন না। এক প্রশ্নের জবাবে মিলার বলেন, “আমি বলবো যে অবশ্যই আমাদের কূটনৈতিক কর্মীদের সুরক্ষা ও নিরাপত্তা আমাদের কাছে সর্বাধিক গুরুত্বপূর্ণ। আর, কূটনৈতিক সম্পর্ক সম্পর্কিত ভিয়েনা কনভেনশন অনুসারে, প্রতিটি আতিথ্যদানকারী দেশকে অবশ্যই সমস্ত কূটনৈতিক মিশন প্রাঙ্গণের সুরক্ষা নিশ্চিত করার জন্য তাদের বাধ্যবাধকতা বজায় রাখতে হবে। কর্মীদের ওপর যে কোনো আক্রমণ প্রতিরোধে সমস্ত কূটনৈতিক পদক্ষেপ নিতে হবে।”

গণমাধ্যমের ওপর ভিসা নিষেধাজ্ঞা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের মন্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি গণমাধ্যমের কথা উল্লেখ করা থেকে বিরত থাকেন। বলেন, “আমি নির্দিষ্ট পদক্ষেপ, পূর্বরূপ পদক্ষেপ সম্পর্কে বলছি না।”

যুক্তরাষ্ট্র পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র ম্যাথিউ মিলার জানান, “আইন প্রয়োগকারী সংস্থা, ক্ষমতাসীন দল এবং রাজনৈতিক বিরোধী দলের সদস্যদের বিরুদ্ধে, সেক্রেটারির কর্তৃত্বের অধীনে, বিধিনিষেধ আরোপের পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। যারা বাংলাদেশে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনকে দুর্বল করার জন্য দায়ী বা জড়িত বলে আমরা বিশ্বাস করি এই পদক্ষেপ তাদের জন্য।”

ম্যাথিউ মিলার বলেন, “২৪ মে আমরা যখন এই নীতি ঘোষণা করি, তখন আমরা স্পষ্ট করে দিয়েছি, নির্দিষ্ট ব্যক্তিদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ নয়; বরং যে কোনো বাংলাদেশি ব্যক্তির ক্ষেত্রে প্রয়োগ করা হবে; যাদের বিষয়ে আমরা বিশ্বাস করি, তারা গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে ক্ষুণ্ণ করার জন্য দায়ী বা এমন কর্মে জড়িত।”

তিনি আরো বলেন, “তাই আমরা অন্য ব্যক্তিদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার বিকল্প বজায় রাখি; যখন আমরা বিশ্বাস করি যে এটি সংশ্লিষ্টদের জন্য উপযুক্ত।”

XS
SM
MD
LG