অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

পাকিস্তান থেকে আফগানদের ফেরত যাবার সময়সীমার শেষ দিনে গণ প্রস্থান


পাকিস্তানের নওশেরার আজাখেল শহরে জাতিসংঘের শরণার্থী প্রত্যাবাসন কেন্দ্রের বাইরে আফগান শরণার্থী শিশুরা জিনিসপত্র বোঝাই একটি ট্রাকে বসে আছে। (৩০ অক্টোবর, ২০২৩)
পাকিস্তানের নওশেরার আজাখেল শহরে জাতিসংঘের শরণার্থী প্রত্যাবাসন কেন্দ্রের বাইরে আফগান শরণার্থী শিশুরা জিনিসপত্র বোঝাই একটি ট্রাকে বসে আছে। (৩০ অক্টোবর, ২০২৩)

হাজার হাজার আফগান অভিবাসী ট্রাক এবং অন্যান্য যানবাহনে করে মঙ্গলবার সীমান্তে ছুটে যান। বৈধতাহীন সমস্ত বিদেশীর স্বেচ্ছায় পাকিস্তান ত্যাগ করার বা গ্রেপ্তার ও জোরপূর্বক বহিষ্কারের মুখোমুখি হওয়ার সরকারী সময়সীমার শেষ দিনে এই গণ প্রস্থানের ঘটনা ঘটে।

পাকিস্তানি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, খাইবার পাখতুনখোয়া ও বেলুচিস্তান প্রদেশের তোরখাম ও চমন সীমান্ত ক্রসিং দিয়ে শরণার্থী পরিবারগুলো আফগানিস্তানে ফিরে যাচ্ছে। পাকিস্তানের উভয় প্রদেশই আফগান শরণার্থীদের সংখ্যাগরিষ্ঠকে আশ্রয় দেয়।

পাকিস্তানে প্রাণঘাতী জঙ্গি হামলা ও আত্মঘাতী বোমা হামলার নাটকীয় বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে দুই মাস আগে দেশটিতে অবৈধভাবে বসবাসরত বিদেশিদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয় কর্তৃপক্ষ।

চলমান দমন-পীড়নের মধ্যে পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সরফরাজ বুগতি গত ৩ অক্টোবর ঘোষণা করেন, অবৈধ সব অভিবাসীকে ১ নভেম্বরের মধ্যে দেশ ছাড়তে হবে অথবা বহিষ্কারের মুখোমুখি হতে হবে। সে সময় তিনি জানান, আনুমানিক ১৭ লক্ষ আফগান দেশটিতে অবৈধভাবে বসবাস করছে।

বুগতি সোমবার সাংবাদিকদের বলেন, গত দুই মাসে দুই লাখেরও বেশি অভিবাসী পাকিস্তান ছেড়ে আফগানিস্তানে ফিরে গেছে। তিনি বলেন, যেসব ব্যক্তি সময়সীমা অতিক্রম করে এ দেশে অবস্থান করবেন তাদের কে আটক করা হবে এবং নিকটবর্তী আফগান সীমান্ত ক্রসিংয়ে নিয়ে যাওয়া হবে। প্রত্যাবাসনের আগে তাদের নির্ধারিত "হোল্ডিং সেন্টারে" রাখা হবে।

আফগানিস্তানের ক্ষমতাসীন তালিবান পাকিস্তানকে তাদের বহিষ্কার পরিকল্পনা পুনর্বিবেচনা করার আহ্বান জানিয়েছে। তারা এটিকে "অমানবিক" এবং "অগ্রহণযোগ্য" বলে অভিহিত করেছে। আফগান শরণার্থীরা পাকিস্তানের নিরাপত্তা চ্যালেঞ্জের জন্য দায়ী বলে যে অভিযোগ উঠেছে সেটাও প্রত্যাখ্যান করেছে তারা।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ মঙ্গলবার বলেছে, পাকিস্তান সরকার অবৈধ আফগান শরণার্থীদের আফগানিস্তানে ফিরে যেতে বাধ্য করার জন্য হুমকি, অপব্যবহার এবং আটকের ব্যবহার করছে।

পাকিস্তানি কর্মকর্তারা বহিষ্কার পরিকল্পনা স্থগিত করার আহ্বান প্রত্যাখ্যান করেছেন।

পাকিস্তান কয়েক দশক ধরে সংঘাত ও নিপীড়ন থেকে পালিয়ে আসা লক্ষ লক্ষ আফগান শরণার্থীকে দেশে আশ্রয় দিয়েছে। যা কিনা দেশটিকে বিশ্বের বৃহত্তম শরণার্থী জনগোষ্ঠীর অন্যতম আশ্রয়দাতা করে তুলেছে।

XS
SM
MD
LG