অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বিএনপির ডাকা ৪৮ ঘণ্টার হরতাল চলছে; বিভিন্ন স্থানে যানবাহনে অগ্নিসংযোগ


সারা দেশে একটি যাত্রীবাহী ট্রেনসহ বেশ কিছু যানবাহনে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। ১৯ নভেম্বর, ২০২৩।
সারা দেশে একটি যাত্রীবাহী ট্রেনসহ বেশ কিছু যানবাহনে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। ১৯ নভেম্বর, ২০২৩।

নির্বাচন কমিশন (ইসি) ঘোষিত তফসিলের প্রতিবাদে, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি এবং সমমনা রাজনৈতিক দলগুলোর ডাকা ৪৮ ঘণ্টার হরতাল শুরু হয়েছে রবিবার (১৯ নভেম্বর) সকাল থেকে।

এর আগে, বিএনপি দেশব্যাপী ৫টি সড়ক, রেল ও নৌপথ অবরোধ কর্মকসূচি পালন করেছে। অবরোধ পালনকালে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে যানবাহনে আগুন দেয়ার ঘটনা ঘটেছে। হরতালের আগে এবং রবিবার সকালেও আগুন লাগানো হয়েছে যানবাহনে। এমন প্রেক্ষাপটে, আগের অবরোধ কর্মসূচির তুলনায় রবিবার রাজধানী ঢাকার বিভিন্ন পয়েন্টে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বাড়তি উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে।

অবরোধের সময়ের তুলনায় ঢাকার সড়কে গণপরিবহনের সংখ্যা কম এবং অনেককে পায়ে হেঁটে গন্তব্যে যেতে দেখা গেছে। তবে, ঢাকার সড়কে রিকশার উপস্থিতি বেশি এবং কিছু ব্যক্তিগত যানবাহন চলাচল করছে।

দেশব্যাপী ৪৮ ঘণ্টার হরতালকে কেন্দ্র করে, ১৮ নভেম্বর সন্ধ্যা ৭টা থেকে রবিবার (১৯ নভেম্বর) সকাল ৬টা পর্যন্ত ঢাকাসহ সারা দেশে একটি যাত্রীবাহী ট্রেনসহ বেশ কিছু যানবাহনে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। রাজধানী ঢাকার গুলিস্তান, ধানমন্ডি ও মিরপুর এলাকায় ৩টি বাসে আগুন দেয়া হয়েছে। কুমিল্লা ও চট্টগ্রামে একটি করে বাস এবং জয়পুরহাটে একটি পিকআপ ভ্যানে আগুন দেয়া হয়। জামালপুরের সরিষাবাড়ী উপজেলায় যমুনা এক্সপ্রেস ট্রেনের ৩টি বগিতে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) উপাচার্যের বাসভবনের সামনে শনিবার রাতে ৩টি ককটেল বিস্ফোরণের পর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী শান্তিপূর্ণভাবে হরতাল সফল করতে জনগণ ও দলের নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান।

২৩৫ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন

বিএনপি,এবং সমমনা দলগুলোর ডাকা ৪৮ ঘণ্টার হরতাল শুরু হওয়ায়, আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সারা দেশে ২৩৫ প্লাটুন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। বিজিবি সদর দপ্তরের জনসংযোগ কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সারা দেশে ২৩৫ প্লাটুন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।
আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সারা দেশে ২৩৫ প্লাটুন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

রবিবার ৪৮ ঘণ্টার হরতালের প্রথম দিনে যে কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে, ঢাকা ও আশপাশের জেলাগুলোতে ২৮ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। শরিফুল ইসলাম জানান, র‌্যাবসহ অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর প্লাটুনগুলো সারা দেশে মোতায়েন করা হয়েছে।

গত মাসের শেষ দিক থেকে বিরোধী দলগুলো অবরোধ ও হরতাল পালন শুরু করার পর থেকে আধা সামরিক বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করে আসছেন বলে জানান বিজিবি সদর দপ্তরের জনসংযোগ কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম।

র‌্যাবের ৪৬০ টহল দল মোতায়েন

বিএনপি, জামায়াত ও সমমনা দলগুলোর ডাকা ৪৮ ঘণ্টার হরতালকে সামনে রেখে, ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) ৪৬০টি টহল দল মোতায়েন করা হয়েছে। র‍্যাব সদর দপ্তরের (মিডিয়া উইং) সহকারী পুলিশ সুপার ইমরান খান এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি আরো বলেন, র‍্যাবের ৩০০ টহল দল, সারা দেশে অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি দায়িত্ব পালন করছে। বাকী টহল দলগুলো রাজধানী এবং এর আশপাশের এলাকায় মোতায়েন করা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা ও র‌্যাব

উল্লেখ্য, ২০২১ সালের ১০ ডিসেম্বর মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে র‍্যাবের সাবেক ও বর্তমান সাত কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয় যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির ট্রেজারি ডিপার্টমেন্ট ও পররাষ্ট্র দপ্তর পৃথকভাবে এই নিষেধাজ্ঞা দেয়। এই কর্মকর্তাদের মধ্যে র‍্যাবের সাবেক মহাপরিচালক ও বাংলাদেশ পুলিশের সাবেক আইজি বেনজীর আহমেদ, র‍্যাবের সাবেক মহাপরিচালক ও বাংলাদেশ পুলিশের বর্তমান আইজি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন, সাবেক অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশনস) খান মোহাম্মদ আজাদ, সাবেক অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশনস) তোফায়েল মোস্তাফা সরোয়ার, সাবেক অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশনস) মো. জাহাঙ্গীর আলম ও সাবেক অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশনস) মো. আনোয়ার লতিফ খানের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের ট্রেজারি ডিপার্টমেন্ট। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তর পৃথক এক ঘোষণায় বেনজীর আহমেদ এবং র‍্যাব ৭–এর সাবেক অধিনায়ক মিফতাহ উদ্দীন আহমেদের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ট্রেজারি বিভাগের প্রকাশিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব), মাদক দ্রব্যের বিরুদ্ধে সরকারের লড়াইয়ে গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘনের জন্য অভিযুক্ত। এতে বলা হয়েছে যে, তারা আইনের শাসন, মানবাধিকারের মর্যাদা ও মৌলিক স্বাধীনতা এবং বাংলাদেশের জনগণের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিকে ক্ষুণ্ন করে। এটি যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা স্বার্থের বিরুদ্ধে হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। র‍্যাব হচ্ছে ২০০৪ সালে গঠিত একটি সম্মিলিত টাস্ক ফোর্স। তাদের কাজের মধ্যে রয়েছে অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, অপরাধীদের কর্মকান্ড সম্পর্কে গোপন তথ্য সংগ্রহ এবং সরকারের নির্দেশে তদন্ত পরিচালনা করা।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, বাংলাদেশের বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো বা এনজিওদের অভিযোগ হচ্ছে যে, র‍্যাব ও বাংলাদেশের অন্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থা, ২০০৯ সাল থেকে ৬০০ ব্যক্তির গুম হয়ে যাওয়া এবং ২০১৮ সাল থেকে বিচার বহির্ভূত হত্যা ও নির্যাতনের জন্য দায়ী। কোনো কোনো প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, এই সব ঘটনার শিকার হচ্ছে বিরোধী দলের সদস্য, সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মীরা।

XS
SM
MD
LG