অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আফগানিস্তানের পশ্চিমাঞ্চলে ইসলামিক স্টেটের ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দিয়েছে তালিবান


ফাইল-তালিবানের কাবুল দখলের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠানে পাহারা দিচ্ছে তালিবান সৈন্যরা। কাবুল, আফগানিস্তান। ১৫ আগস্ট, ২০২৩।
ফাইল-তালিবানের কাবুল দখলের দ্বিতীয় বর্ষপূর্তির অনুষ্ঠানে পাহারা দিচ্ছে তালিবান সৈন্যরা। কাবুল, আফগানিস্তান। ১৫ আগস্ট, ২০২৩।

আফগানিস্তানে তালিবান নিরাপত্তা বাহিনী ইসলামিক স্টেট গোষ্ঠীর এক কর্মীকে হত্যা করেছে এবং বেশ কয়েকজনকে আটক করেছে বলে খবর পাওয়া গেছে। ইরানের সঙ্গে এই দেশের সীমান্তের কাছে জঙ্গি গোষ্ঠীর ঘাঁটিতে রাতে হানা দিয়ে এমনটা ঘটানো হয়েছে।

তালিবানের সঙ্গে সম্পর্কিত একটি মিডিয়া সংস্থা শুক্রবার বলেছে, ইসলামিক স্টেটের আঞ্চলিক শাখার “গুরুত্বপূর্ণ নেটওয়ার্ক” ইসলামিক স্টেট-খোরাসান বা আইএস-কে নামে পরিচিত।

আল মেরসাদের বক্তব্য অনুযায়ী, আফগানিস্তানে শিয়া সম্প্রদায়ের উপর সাম্প্রতিক কয়েকটি হামলার সঙ্গে এই নেটওয়ার্ক যুক্ত ছিল। সেই দেশে আইএস-কে-এর অপপ্রচারের মোকাবেলা ও এই গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে তালিবানের সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান সম্পর্কে রিপোর্ট করার দায়িত্বে রয়েছে এই আল মেরসাদ।

এই গোষ্ঠীকে চিহ্নিত করতে স্থানীয় একটি অ্যাক্রনিম বা আদ্যাক্ষর ব্যবহার করে আল মেরসাদ উল্লেখ করে, “আইএসকেপির গ্রেফতার হওয়া কয়েকজন সদস্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।”

স্বাধীন ও স্বতন্ত্র সূত্র থেকে এই দাবিকে যাচাই করা সম্ভব হয়নি এবং রাষ্ট্রীয় মিডিয়া যে প্রতিবেদনগুলি প্রকাশ করে সে বিষয়ে তালিবান সরকারের কর্মকর্তারা কোনও মন্তব্য প্রায় করেনই না।

সাম্প্রতিক এক বিবৃতিতে যুক্তরাষ্ট্র আইএস-কে গোষ্ঠীকে আঞ্চলিক নিরাপত্তার জন্য মারাত্মক হুমকি বলে অভিহিত করেছে। সেই সঙ্গে সতর্ক করা হয়েছে যে, এই গোষ্ঠী আফগান ঘাঁটিগুলি থেকে শীঘ্র আন্তর্জাতিক হামলা চালাতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বৃহস্পতিবার কংগ্রেসকে লেখা এক চিঠিতে এইসব উদ্বেগের প্রতি আলোকপাত করার চেষ্টা করেন।

গত সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতর তাদের বার্ষিক রিপোর্টে জানিয়েছে, আফগানিস্তানের বেসামরিক নাগরিকদের, বিশেষ করে শিয়া সম্প্রদায় ও তালিবানের উপর সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে যাচ্ছে আইএস-কে।

XS
SM
MD
LG