অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

কাবুলে রক্তপাত এড়াতেই দেশ ছেড়েছেন, বললেন আশরাফ গনি


সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের একটি ভিডিও থেকে নেয়া এই ছবিতে দেখা যাচ্ছে, আফগানিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি দেশটির সবশেষ পরিস্থিতি নিয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে কথা বলছেন। আগষ্ট ১৮, ২০২১।

আফগানিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি বুধবার বলেছেন, তালিবান বিদ্রোহীরা নিয়ন্ত্রণ নেবার পর রাজধানী কাবুলের রাস্তায় রক্তপাত এড়াতে তিনি গত মাসে দেশ ছেড়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতে চলে যান। দেশ ছেড়ে চলে যাবার সময় সরকারি তহবিল লুন্ঠনের কথা তিনি অস্বীকার করেন।

গনি এক বিবৃতিতে বলেন, প্রাসাদের নিরাপত্তা বাহিনীর অনুরোধে আমি চলে এসেছি। তারা আমাকে পরামর্শ দিয়েছিল যে, ১৯৯০ এর দশকের গৃহযুদ্ধের সময় শহরের রাস্তায় রাস্তায় ভয়াবহ লড়াইয়ে যে পরিনতি হয়েছিল, সেই ধরণের ঝুঁকি নিয়ে থাকতে হবে। কাবুল ত্যাগ করা আমার জীবনের সবচেয়ে কঠিন সিদ্ধান্ত ছিল। তবে আমি মনে করি গোলাগুলি বন্ধ রাখা এবং কাবুলের ৬০ লক্ষ নাগরিককে রক্ষা করার এটাই ছিল একমাত্র উপায়।

৭২ বছর বয়সী আশরাফ গনি বলেন, তিনি আফগানিস্তানে একটি গণতান্ত্রিক সরকার গঠনের জন্য ২০ বছর ধরে কাজ করেছেন। তবে তিনি স্বীকার করেন যে, গত কয়েক দশকের অন্যান্য সরকারের মত তিনিও দেশটিতে 'স্থিতিশীলতা এবং সমৃদ্ধি' নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হয়েছেন।

সংযুক্ত আরব আমিরাত জানিয়েছে, তারা 'মানবিক ভিত্তিতে' গনিকে স্বাগত জানিয়েছেন।

গনি বলছিলেন যে, গত ১৫ আগষ্টে তার আকস্মিক প্রস্থান নিয়ে অদূর ভবিষ্যতে তিনি আরও বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেবেন। তবে তিনি বলেন, কাবুল ত্যাগ করার সময় তার সাথে করে আফগান জনগনের কয়েক মিলিয়ন ডলার নিয়ে যাবার ভিত্তিহীন অভিযোগের বিষয়ে তাকে অবশ্যই এখনই কথা বলতে হবে।

রাশিয়ার আরআইএ সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে, গনি চারটি গাড়ি এবং হেলিকপ্টার ভর্তি টাকা নিয়ে কাবুল থেকে চলে যান। জায়গা না হওয়ায় কিছু অর্থ রেখে যান। অন্যান্য সংবাদ সংস্থা জানিয়েছে, তিনি সরকারি কোষাগার থেকে ১৬৯ মিলিয়ন ডলার নিয়েছেন। তাজিকিস্তানে আফগানিস্তানের রাষ্ট্রদূতও ঐ অভিযোগ করেন।

XS
SM
MD
LG