অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সরকার ৫ বছর ক্ষমতায় থাকবে বলে রাষ্ট্রদূত আকরামুল কাদেরের ধারণা


ওয়াশিংটনের থিংক ট্যাংক সংগঠন ‘রুমি ফোরামের’ উদ্যোগে ‘বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন এবং নির্বাচন পরবর্তী অবস্থা’ শীর্ষক এ্যাম্বাসেডরস স্পিকিং সিরিজে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত আকরামুল কাদের। এলিসা আয়ার্সের উপস্থাপনায় বুধবার ২৩শে এপ্রিল অনুষ্ঠিত এ আয়োজনে রাষ্ট্রদূত আকরামুল কাদের বললেন, এ বছর ৫ জানুয়ারী অনুষ্ঠিত নির্বাচন নিয়ে নানা আলোচনা হলেও সরকার যেভাবে দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কাজ করছেন তাতে বলা যায় বাংলাদেশের সামনে অপেক্ষা করছে সমৃদ্ধ ভবিষ্যৎ:

‘বাংলাদেশ যেভাবে এগুচ্ছে, এই ধারা অব্যাহত থাকলে অচিরেই বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে’।

বাংলাদেশের বহুল বিতর্কিত ৫ই জানুয়ারীর নির্বাচন ও তৎপরবর্তী অবস্থায় সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডের বর্ণনা দেয়ার পর অনুষ্ঠানে উপস্থিত কিছু প্রবাসী বাংলাদেশী নির্বাচনের গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন।

আকরামুল কাদের বলেন ৪২ শতাংশ ভোটারের সমর্থন নিয়ে একটি চমৎকার সরকার গঠিত হয়েছে। সরকারের অর্জন সম্পর্কে বলতে গিয়ে তিনি বলেন এই সরকারের আমলে আমরা স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারছি। আমাদের মাথাপিছু আয় বেড়েছে। এছাড়াও তিনি নানা প্রসঙ্গ তুলে ধরেন।

অচিরেই পূন:নির্বাচন হওয়ার সম্ভাবনা বা এই সরকারের মেয়াদ সম্পর্কে জানতে চাইলে রাষ্ট্রদূত বলেন এ ব্যাপারে তিনি নিশ্চিত নন। তবে সাধারণভাবে নির্বাচিত সরকার যেহেতু ৫ বছর ক্ষমতায় থাকার কথা, ধারণা করে বলা যায় এ সরকারও ৫বছর থাকতে পারে। আর যদি এমন কোনো পরিস্থিতির উদ্ভব হয় যাতে মধ্যবর্তী নির্বাচন প্রয়োজন হবে, যা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে হয়, তাও হতে পারে।

বাংলাদেশের রানা প্লাজা দুর্ঘটনার বর্ষপুতির সময়ে এই অনুষ্ঠানটি হওয়ায় প্রসঙ্গতই পোষাক শিল্পের ভবিষ্যৎ নিয়েও কথা বলেন আকরামুল কাদের। তিনি বলেন এই শিল্পের ভবিষ্যৎ উন্নয়নে সরকার সব রকম প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

অনুষ্ঠানের সঞ্চালক এলিসা আয়ার্স বলেন, “বাংলাদেশের সামনে অনেক চ্যালেঞ্জ। অনেক ক্ষেত্রেই সরকার উন্নতি ঘটিয়েছেন। রানা প্লাজা দুর্ঘটনার বর্ষপুর্তি হলো। পোষাক শিল্পকে সচল রাখতে সরকারকে আরো অনেক পদক্ষেপ নিতে হবে। শ্রমিকের কর্মপরিবেশ ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে”।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ছাড়াও ভারত পাকিস্তান ও দক্ষিন এশিয়ার বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।
সরাসরি লিংক
XS
SM
MD
LG