অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আসাঞ্জকে যুক্তরাষ্ট্রে পাঠানো নিয়ে রাজনৈতিক মতভেদ


Julian Assange

গ্রেপ্তারের পর থেকেই উইকিলিক্সের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান আসাঞ্জ ব্রিটিশ জেলে বন্দী রয়েছেন । তাঁর ভবিষ্যৎ নিয়ে যেমনটি প্রত্যাশিত ছিল দীর্ঘ আইনি এবং রাজনৈতিক লড়াই হবে।

ব্রিটেনের বিরোধী লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিন , বিচারের জন্য আসাঞ্জকে যুক্তরাষ্ট্রে পাঠানো বন্ধ করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি টুইটারে লেখেন যে ইরাক ও আফগানিস্তানে নির্যাতনের প্রমাণ প্রকাশ করার অপরাধে বিচারের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে তাঁকে পাঠানোর বিষয়টির বিরোধীতা কা উচিৎ।

https://twitter.com/jeremycorbyn/status/1116424423953903616 ]]

লন্ডনে আসাঞ্জের উকিল জেনিফার রবিন্সন নিশ্চিত করেছেন যে যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে আসাঞ্জের বিচার করানোর প্রচেষ্টার বিরুদ্ধে তিনি লড়ে যাবেন। গতকাল রবিন্সন বিবিসিকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন আসাঞ্জ অবশ্যই বিচারের জন্য যুক্তরাষ্ট্রে তাঁকে পাঠানোর বিরুদ্ধে আপ্রাণ লড়ে যাবেন। তিনি বলেন সব চেয়ে বড় প্রশ্ন হচ্ছে সত্য তথ্য প্রকাশের জন্য যুক্তরাষ্ট্র কেন তার বিচার চাইছে ?

এ দিকে আসাঞ্জের গ্রেপ্তার সম্পর্কে চিলিতে এক টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেন যারা চুরি করা তথ্য নিয়ে , সৈন্য , নাবিক , বৈমানিক এবং মেরিনদের জীবন ঝুঁকির সম্মুখীন করে , তাদেরকে বিচারের সম্মুখীন করা হলে , আমেরিকা বরাবর খুশি হয়। তিনি বলেন গোপন তথ্য প্রচার করা সঠিক নয় , সেটা সাংবাদিকতা ও নয়।

XS
SM
MD
LG