অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

দেশজুড়ে মানুষের মধ্যে তীব্র ভীতি, আতংক ও অনিশ্চয়তার সৃষ্টি হয়েছে


মন্ত্রী, এমপি, ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তা, সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ করোনায় আক্রান্ত হওয়া এবং কয়েকজনের মৃত্যু, করোনা পরীক্ষায় ও চিকিৎসার ক্ষেত্রে বেহাল-দশা, পুনরায় লকডাউনের ব্যবস্থাসহ সামগ্রিক পরিস্থিতিতে দেশজুড়ে মানুষের মধ্যে তীব্র ভীতি, আতংক ও অনিশ্চয়তার সৃষ্টি হয়েছে- যা দিন দিন বাড়ছে। সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী রাজধানীর ৪৫টি এলাকাকে রেড জোন বা উচ্চ সংক্রমিত এলাকা হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। ঘোষণা অনুযায়ী এসব এলাকাকে সোমবার থেকে লকডাউনের আওতায় আনার কথা বলা হলেও এসব এলাকায় এ পর্যন্ত কোনো বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়নি। মানুষজনকে জানানোও হয়নি কিভাবে, কখন থেকে শুরু হবে লকডাউন।

রেড জোন চিহ্নিত করার ক্ষেত্রে সরকারেরই বিভিন্ন সংস্থা নিশ্চিত নয় যে, ঘোষিত রেড জোন এলাকার পুরোটা লকডাউনের আওতায় আসবে বা কোন কোন সুনির্দিষ্ট এলাকা এর আওতায় পড়বে। ইয়েলো এবং সবুজ জোন সম্পর্কেও কোন নির্দেশনা দেওয়া হয়নি। ঢাকা ছাড়াও চট্টগ্রামের ১১টি এলাকা, নরসিংদী, নারায়ণগঞ্জ ও গাজীপুরের কয়েকটি এলাকাকে রেড জোন চিহ্নিত করা হয়েছে। এসব এলাকাকে কবে ও কখন লকডাউনের আওতায় আনা হবে তাও নিশ্চিত করে বলা হয়নি।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় সিলেটের সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরান রোববার দিবাগত শেষ রাতে মারা গেছেন। তাঁর মৃত্যুতে প্রেসিডেন্ট এবং প্রধানমন্ত্রী শোক প্রকাশ করেছেন।

মরণব্যাধি করোনার থাবা থেকে কেউই এখন মুক্ত নন। এই থাবায় ইতিমধ্যে আক্রান্ত হয়েছেন এবং মারা গেছেন মন্ত্রিসভার বর্তমান ও সাবেক কয়েকজন সদস্য, এমপি, উচ্চপদস্থ সরকারি কর্মকর্তাবৃন্দ ও সমাজের বিশিষ্টজনেরা। এছাড়াও বেশ কয়েকজন চিকিৎসাধীন ও আইসোলেশনে রয়েছেন। এতে ভীতির মাত্রা বেড়েছে কয়েকগুণ। এতোদিন চিকিৎসক, সাংবাদিক, পুলিশ, ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন পেশার ও সাধারণ মানুষ আক্রান্ত ও মৃত্যুবরণ করেছেন। বর্তমানে বেশ কয়েকজন মন্ত্রী ও এমপি করোনায় আক্রান্ত বলে শনাক্ত হয়েছেন। সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছে, বাংলাদেশের সশস্ত্রবাহিনী এবং পুলিশসহ আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের মধ্যে ১১ হাজার ২৪৭ জন সদস্য এবং তাদের পরিবারের সদস্যরা আক্রান্ত হয়েছেন। এ পর্যন্ত পুলিশের ২৪ জন সদস্য করোনায় মারা গেছেন।



করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় বাংলাদেশে আরো ৩৮ জন মারা গেছেন। এ নিয়ে মোট মৃত্যের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ২০৯ জনে। এই সময়ে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন ৩ হাজার ৯৯ জন। এ নিয়ে দেশে মোট করোনা শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়ে ৯০ হাজার ৬১৯ জনে। স্বাস্থ্যদপ্তর বলছে, এ পর্যন্ত সবমিলিয়ে সুস্থ্য হয়েছেন ৩৪ হাজার ২৭ জন অর্থাৎ ৩৭.৫৫ শতাংশ। একে স্বাস্থ্যদপ্তর উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হিসেবে চিহ্নিত করেছে।
এদিকে, এক সরকারি ঘোষণায় করোনার কারণে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি আগামী ৬ আগস্ট পর্যন্ত বাড়িয়ে দেয়ার কথা বলা হয়েছে।

ঢাকা থেকে আমীর খসরুর প্রতিবেদন।

please wait

No media source currently available

0:00 0:02:48 0:00


XS
SM
MD
LG