অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ভারত এক লক্ষ ৭০ হাজার কোটি টাকার আর্থিক সহায়তা প্যাকেজ ঘোষণা করেছে


ভারতে করোনা ভাইরাসের জেরে আর্থিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষকে সাহায্য করতে কেন্দ্রীয় সরকার বিশেষ প্যাকেজ ঘোষণা করেছে। কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধী এমন একটা ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন। এবং আর্থিক সাহায্য যে দেওয়া হতে পারে সংবাদসংস্থা রয়টার্স কালকেই তার আভাস দিয়েছিল। বলেছিল, সরকার এই সপ্তাহে দেশবাসীর কাছে এরকম কোনও গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা করতে চলেছে।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন দিল্লিতে এক সাংবাদিক সম্মেলন ডেকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে সব মিলিয়ে এক লক্ষ ৭০ হাজার কোটি টাকার আর্থিক সহায়তার প্যাকেজ ঘোষণা করেন। বিশেষ করে গ্রাম ও শহরের দরিদ্র শ্রেণীর কয়েক কোটি মানুষ এতে উপকৃত হবেন। অর্থমন্ত্রীর বক্তব্য, করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে ভারতের কোটি কোটি মানুষের রুজি রোজগার বন্ধ হয়ে গিয়েছে। তবে এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন প্রান্তবাসী খেটে খাওয়া মানুষ। যেমন কৃষক ও দিনমজুর। কাউকে আমরা না খেয়ে মরতে দেব না। এঁদের জন্য এককালীন অর্থ সাহায্য ছাড়াও আগামী তিন মাস বিনামূল্যে রেশনে প্রতি মাসে অতিরিক্ত পাঁচ কিলোগ্রাম করে চাল ডাল আর গম দেওয়া হবে। ১০০ দিনের কাজের মজুরি বাড়িয়ে ২০২ টাকা করা হলো। যে সব গরিব পরিবার সরকারের কাছ থেকে রান্নার গ্যাস সিলিন্ডার পায়, তাদের আপাতত আরো তিনটি করে সিলিন্ডার দেওয়া হবে। ২০ কোটি দরিদ্র মহিলাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে আগামী তিন মাস ৫০০ টাকা করে প্রতি মাসে জমা পড়বে। সামান্য অবসর ভাতার ওপর নির্ভর করে যাঁদের দিন চালাতে হয়, সেই বৃদ্ধ, বিধবা মহিলা ও প্রতিবন্ধীরা এছাড়া আরো দু'হাজার করে টাকা পাবেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ডাক্তার, নার্স ও মেডিক্যাল কর্মীরা নিজেদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে হাসপাতালে রোগীদের চিকিৎসা করে যাচ্ছেন। তাঁদের প্রত্যেকের নিরাপত্তার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার ৫০ লাখ টাকার বিমার ব্যবস্থা করেছে। কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী কেন্দ্রীয় সরকারের এই আর্থিক সহায়তা প্যাকেজকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, এই প্রথম সরকার দেশের গরিব মানুষের জন্য সদর্থক পদক্ষেপ নিল। এই সিদ্ধান্ত প্রশংসনীয়।

XS
SM
MD
LG