অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশের ৬৩টি জেলায় বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা: ১২ বছর পর


Police officers frisk a commuter during a search operation in Dhaka, Bangladesh, Thursday, Aug. 18, 2005.

বাংলাদেশে জঙ্গীদের অস্তিত্ব জানান দিতে ঢাকাসহ দেশের ৬৩টি জেলায় ২০০৫ সালের ১৭ আগস্ট একযোগে বোমা হামলার একযুগ পূর্ণ হলো বৃহস্পতিবার। জঙ্গী সংগঠন জামায়াতুল মুজাহেদীন বাংলাদেশ বা জেএমবি ওই বোমা হামলা চালিয়েছিল। ওই ঘটনায় পুলিশ সারাদেশে ১৬১টি মামলা দায়ের করে-যার মধ্যে এতোদিনে ১৪৩টির চার্জশিট বা অভিযোগ পত্র জমা দেয়া হয়েছে। অনেক মামলাই এখন পর্যন্ত নিষ্পত্তি না হওয়ায় উদ্বিগ্ন রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা অ্যার্টনি জেনারেল অ্যাডভোকেট মাহবুবে আলম।
এক যুগ সময়ে বাংলাদেশে জঙ্গীবাদের ধরন-ধারন, কার্যক্রম যেমন পাল্টেছে, তেমনি বিস্তার ঘটেছে জঙ্গী সংগঠনগুলোর। ছোটখাটো হামলা আবার সাময়িক পিছুহটার মধ্যে ভেতরে ভেতরে সংগঠিত ও শক্তি সঞ্চয় করেছিল জঙ্গী সংগঠনগুলো-যার বহিঃপ্রকাশ গত বছরের জুলাই মাসে গুলশান হলি আর্টিজান বেকারীতে হামলা। এরপর থেকে জঙ্গীবিরোধী অভিযান চলছে। ঢাকার পুলিশ প্রধান আছাদুজ্জামান মিয়া মনে করেন, বড় ধরনের নাশকতার সক্ষমতা জঙ্গীদের আর নেই।
২০০৫ সাল থেকে এই পর্যন্ত সময়ে জঙ্গীবাদের বিস্তার সম্পর্কে বিশ্লেষণ করেছেন বিশিষ্ট নিরাপত্তা বিশ্লেষক এবং নিরাপত্তা বিষয়ক প্রভাবশালী গবেষণা সংস্থা বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব পিস অ্যান্ড সিকিউরিটিজ স্টাডিজ-এর প্রধান অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল মুনীরুজ্জামান।
জেনারেল মুনীরুজ্জামান জঙ্গী মোকাবেলায় যতোটা সফলতার দাবি আইন-শৃংখলা রক্ষাবাহিনী করছে- সে দাবির সাথে দ্বিমত পোষণ করেন এবং বলেন, জঙ্গীদের ক্ষমতা পুরোপুরি বিনাশ করা গেছে বলে যা বলা হচ্ছে, তা যথার্থ নয়।
ঢাকা থেকে বিস্তারিত জানিয়েছেন আমীর খসরু।

XS
SM
MD
LG