অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

কাল সকালে ভোটের প্রচারণার সমাপ্তি


earl Miller

কাল সকাল ৮টা থেকে ভোটের প্রচারণার সমাপ্তি ঘটছে। ভোট হবে ৩০শে ডিসেম্বর। এবারের প্রচারণা ছিল যে কোন সময়ের তুলনায় ভিন্ন। সরকার সমর্থকরা প্রচারণায় এগিয়ে। বিরোধীদের মিছিল-সমাবেশ ছিল সীমিত। পোস্টার, ব্যানারও তেমন চোখে পড়েনি। বিশেষ করে রাজধানী ঢাকায়। বিরোধীরা নির্বাচন কমিশনে আর আদালতে সময় পার করেছেন। সংসদ বহাল রেখেই এবার নির্বাচন হচ্ছে। বিরোধী নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এক দুর্নীতি মামলায় দ-প্রাপ্ত হওয়ায় নির্বাচনে অযোগ্য হয়েছেন। আদালতে আটকে গেছেন ২৩ জন প্রার্থী। এর মধ্যে বিএনপির ২১ জন। বাকি দু’জন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী। জামায়াতে ইসলামীর ২৫ জন প্রার্থী শেষ মুহূর্তে এসে নির্বাচনে দাঁড়ানোর সুযোগ পেয়েছেন। তবে উচ্চ আদালত থেকে একটি রুল জারি করা হয়েছে তাদের ব্যাপারে। ১৩ জন প্রার্থী হামলায় রক্তাক্ত হয়েছেন। এর মধ্যে দু’জন আইসিইউতে। সংঘাতের ঘটনা ঘটেছে ৭৩৪টি। বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি বলেছে, নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর ৮০৬টি মামলায় ৯২০০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অব্যাহত সহিংসতায় যুক্তরাষ্ট্র উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে ঢাকাস্থ মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবার্ট মিলার নির্বাচন কমিশনে গিয়ে তাদের উদ্বেগের কথা জানিয়েছেন। রাষ্ট্রদূত অপেক্ষমাণ সাংবাদিকদের বলেন, গত দুই সপ্তাহের প্রচারণার সময় উচ্চ মাত্রার সহিংসতায় যুক্তরাষ্ট্র উদ্বিগ্ন।

সহিংসতায় সকল দল আক্রান্ত হয়েছে। সংখ্যালঘু এবং নারী প্রার্থীরাও আক্রান্ত হয়েছেন। বিরোধী দলের প্রার্থীরা বেশি সহিংসতার শিকার হয়েছেন। নির্বাচনী সংবাদ প্রকাশের স্বাধীন গণমাধ্যম যাতে কাজ করার সুযোগ পায় সেই পরিবেশ নিশ্চিত করার ওপর জোর দেন রাষ্ট্রদূত মিলার।

ঢাকাস্থ বৃটিশ হাই কমিশনার অ্যালিসন ব্লেইক সিলেটে বলেছেন, তার দেশ বাংলাদেশে একটি উৎসবমুখর নির্বাচন দেখতে চায়। কিন্তু কিছু কিছু স্থানে নির্বাচনের প্রচারণায় সংঘর্ষ, বল প্রয়োগের ঘটনা ঘটেছে যা নিন্দনীয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কলকাতার আনন্দ বাজার পত্রিকাকে বলেছেন, তার দল আবারও ক্ষমতায় আসছে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন এক সংবাদ সম্মেলনে ভোটারদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, সরকার ভয়ের পরিবেশ তৈরি করতে চাইলেও ভয় পাবার কিছু নেই।

ঢাকা থেকে মতিউর রহমান চৌধুরী

please wait

No media source currently available

0:00 0:02:08 0:00

XS
SM
MD
LG