অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর আসন্ন ভারত সফর ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠক


Modi & Hasina

বিশ্বভারতীর সমাবর্তন ও বাংলাদেশ ভবন উদ্বোধনকে মর্যাদা দিলেও প্রতিবেশী দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠককে কুটনৈতিকভাবে বেশি গুরুত্ব দিতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, এবং প্রধানমন্ত্রীর সময়ের অভাবেইতাঁর সচিবালয়ের অনুরোধেই ঐতিহ্যমণ্ডিত বিশ্বভারতীর সমাবর্তন থেকে এবছরের মতো বাদ হয়ে গেল দেশিকোত্তম, অবনগগন ও রথীন্দ্র পুরস্কার বিতরণ কর্মসূচি।
বিস্তারিত জানাচ্ছেন কলকাতা থেকে পরমাশিষ ঘোষ রায়।

please wait

No media source currently available

0:00 0:01:59 0:00

বস্তুত সময়ের অভাবের কারণেই পাঁচ বছর বাদে বিশ্বভারতীর আচার্য-প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে আম্রকুঞ্জের সমাবর্তন অনুষ্ঠান কাটছাঁট হচ্ছে। উলটে দ্বিপাক্ষিক একান্ত বৈঠকের সময় বাড়িয়ে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর সচিবালয়ের অনুরোধেই ঐতিহ্যমণ্ডিত সমাবর্তন থেকে এবছরের মতো বাদ হয়ে গেল দেশিকোত্তম, অবনগগন ও রথীন্দ্র পুরস্কার বিতরণ কর্মসূচি। কারণ, দুই অনুষ্ঠান শেষে রথীন্দ্র সভাগৃহে একান্তে বঙ্গবন্ধু-কন্যার সঙ্গে দুই দেশের নানা গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনাকে বিশেষ গুরুত্ব দিতে চাইছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্রমোদী। দেশের সংসদ নির্বাচনের আগে শেষবার ভারত সফরে একান্ত বৈঠকে তিস্তার জলবণ্টন,সীমান্ত বাণিজ্য,রোহিঙ্গা-প্রত্যাবর্তন ও জঙ্গি দমনের মতো গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুতে নরেন্দ্র মোদির পূর্ণ সমর্থন চাইতে পারেন বঙ্গবন্ধু-কন্যা। এমনই অভিমত কূটনৈতিক মহলের। উলটোদিকে চিনের দিকে ‘ঝুঁকে’ যাওয়া বাংলাদেশকে পুরোপুরি নিজেদের কবজায় নিয়ে আসতে এই একান্ত বৈঠকটিকে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছেন নরেন্দ্র মোদি বলেও খবর। এদিকে আগামী পঁচিশে মে তারিখেই শান্তিনিকেতনে ‘বাংলাদেশ-ভবনেরও’ উদ্বোধন করবেন শেখ হাসিনা। সেই সাথে আসবেন কলকাতার নেতাজি ভবন এবং জোড়াসাঁকো ঠাকুরবাড়িতেও। একান্তে দেখা করতে চান বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গেও। বস্তুত এই কারণে শান্তিনিকেতনে বাংলাদেশ ভবনের উদ্বোধনে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকার জন্য হাসিনা সরকারের তরফে বিশেষ অনুরোধ করা হয়েছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় কেও। প্রসংগত বলা যেতে পারে প্রধানমন্ত্রীর সময়ের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখেই সমাবর্তনের সূচি তৈরি হয়। ছয়ের দশকে এভাবেই একবার আচার্য-প্রধানমন্ত্রী সময় দিতে না পারায় দেশিকোত্তম বিতরণ বাতিল হয়ে গিয়েছিল। তবে শীঘ্রই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে পুরস্কারপ্রাপকদের সম্মানিত করা হবে। এবছর দেশিকোত্তম পাওয়ার কথা ছিল বলিউডের বিগ-বি অমিতাভ বচ্চন, চিত্রশিল্পী যোগেন চৌধুরি, কবি গুলজার, লেখক অমিতাভ ঘোষ, শিল্পী দ্বিজেন মুখোপাধ্যায়, অধ্যাপক সুনীতি কুমার পাঠক, বিজ্ঞানী অশোক সেনের।

XS
SM
MD
LG