অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ঢাকায় পুলিশ-বিএনপি সংঘর্ষ


ঢাকার নয়াপল্টনে বিএনপি'র কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে দলটির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে। এ সময় পুলিশের প্যালিট বুলেটে বিএনপি'র অন্তত ২০ নেতাকর্মী আহত হন। দলটির নেতাকর্মীরা ঐ এলাকায় গাড়িতে ভাঙচুর চালায়। আগুন দেয়া হয় পুলিশের দুটি পিকআপে। এ ঘটনার জন্য বিএনপি ও আওয়ামী লীগ পরস্পরকে দায়ী করেছে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি নেতা মির্জা আব্বাসের নেতৃত্বে বিনা উসকানিতে পুলিশের ওপর হামলা চালানো হয়েছে। নির্বাচন বানচাল করার জন্যই এ হামলা।

অন্যদিকে, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, পুলিশ অন্যায়ভাবে নেতাকর্মীদের ওপর হামলা চালিয়ে নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট করছে।

এছাড়া, পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ইস্যু তৈরি করার জন্য বিএনপি নেতাকর্মীরা এ ঘটনা ঘটিয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, তৃতীয় দিনের মতো মঙ্গলবারও বিএনপি'র নেতাকর্মীরা মনোনয়নপত্র সংগ্রহের জন্য দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমবেত হন। পুলিশ তাদের রাস্তায় দাঁড়াতে দিচ্ছিলো না। বেলা পৌনে ১টার দিকে বিএনপি'র স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের নেতৃত্বে কয়েক হাজার নেতাকর্মী দলীয় কার্যালয়ের সামনে আসে। এসময় পুলিশ কার্যালয়ের সামনে থেকে তাদের সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করে। নেতাকর্মীরা সরে না যাওয়ায় একপর্যায়ে পুলিশের গাড়ি মিছিলের ওপর উঠে যায়। ঐ সময় কয়েকজন আহত হন। এতে মুহুর্তের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়ে যায়। চলে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া। পুলিশ প্যালেট বুলেট ও কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোড়ে। একপর্যায়ে নেতা-কর্মীরা ঐ এলাকা দিয়ে চলাচল করা গাড়িতে ভাঙচুর চালায়। আগুন দেয়া হয় পুলিশের গাড়িতেও।

please wait

No media source currently available

0:00 0:00:56 0:00

XS
SM
MD
LG