অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ব্রাজিলে পাহাড়ের পাথর ধসে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ১০


ঝর্ণার নিকটবর্তী যে স্থানে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে

ব্রাজিলে পাহাড়ের একাংশ ধসে পর্যটকদের নৌকার ওপর পড়ায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০। পুলিশের বরাত দিয়ে ব্রাসিলিয়া থেকে বার্তা সংস্থা এপি জানায়, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ মৃতদের শনাক্তে এবং অন্য কেউ নিখোঁজ রয়েছেন কিনা তা খতিয়ে দেখছেন।

পুলিশ প্রধান মারকোস পিমেন্তা বলেন, শনিবারের এই দুর্ঘটনায় আরও অনেকে নিখোঁজ থাকতে পারেন।

এই ঘটনায় ৩২ জন আহত হন। যদিও আহতদের বেশিরভাগই প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে শনিবার সন্ধ্যায়ই হাসপাতাল ছেড়েছেন।

ব্রাজিলের সাও হোসে বারা এবং ক্যাপিতোলিও শহরের মধ্যবর্তী একটি জায়গায় দুর্ঘটনাটি ঘটে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিওতে দেখা যায় ফুরনাস লেকে ভাসতে থাকা পর্যটক বোঝাই কয়েকটি ছোট ডিঙ্গি নৌকার ওপর হুড়মুড়িয়ে ভেঙ্গে পড়ছে বড় একটি পাথরের টুকরো।

মৃতদেহগুলো পাসোস শহরে স্থানান্তরিত করা হয়েছে এবং নিহতদের শনাক্তের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। পুলিশ অফিসার পিমেন্তা বলেন, এখন পর্যন্ত একজন নিহতের পরিচয় নিশ্চিত হয়েছে। ৬৮ বছর বয়সী ওই ব্যক্তির নাম হুলিও বোর্গেস।

সাও পাওলো থেকে ৪২০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত ফুরনাস হ্রদটি পর্যটকদের অন্যতম আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু।

পুলিশ কর্মকর্তাদের মতে ভারি বর্ষণের কারণে পাহাড়ের খাদগুলো আলগা হয়ে যেয়ে থাকতে পারে। সম্প্রতি ভারী বর্ষণের কারণে এই রাজ্যে সংঘটিত বন্যায় প্রায় ১৭ হাজার মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েন। ব্রাজিলের ভূতাত্ত্বিক সংস্থার ফলিত ভূতত্ত্ব বিভাগের প্রধান তিয়াগো আন্তনেলি বলেন, ‘গিরিখাতে এ ধরনের দুর্ঘটনা প্রায়শই ঘটে। ইদানিং পর্যটনের প্রসারের সঙ্গে সঙ্গে মানুষ এসব এলাকায় ঘুরতে যায় এবং ঘটনাগুলো ক্যামেরাবন্দীও করে’।

গোয়াইস ফেডারেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ত্বের অধ্যাপক জোয়ানা ফন্তেজ বলেন, কর্তৃপক্ষের উচিত এসব এলাকায় বর্ষাকালে জনসমাগম নিয়ন্ত্রণ করা।

‘ঝর্ণার নিকটবর্তী যে স্থানে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে সেখান থেকে অন্তত এক কিলোমিটার দূরে নৌকাগুলো ভিড়ানো উচিত ছিল,’ তিনি বলেন।

XS
SM
MD
LG