অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

নতুন স্থল সীমান্ত আইন প্রবর্তনের পথে চীন


ভারত চীন সীমান্তে টহল দিচ্ছেন ভারতীয় সেনা সদস্যরা- ফাইল ফটো- এপি

ভারত-চীন সীমান্তের বিবাদের মধ্যেই চীন সরকার দেশের স্থল সীমান্ত আইন প্রবর্তন করতে চলেছে। শনিবার চীনের আইনসভায় এই সংক্রান্ত একটি বিশেষ আইনের স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। সীমান্ত এলাকায় সুরক্ষা বাড়াতে নতুন আইন আনছে বলে খবর।

সীমান্তের সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়নের ওপর জোর দিতে এই নতুন আইন গ্রহণ করা হয়েছে। চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি সীমান্তে থাকা মানুষের ওপর নজরদারি চালাবে। প্রতিরক্ষার কাজে এই সীমান্তবর্তী এলাকার মানুষ অংশগ্রহণ করবেন।

চীনের সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, নতুন আইনের মাধ্যমে সীমান্তের দীর্ঘ মেয়াদী বিবাদ বোঝাপড়ার মধ্যে দিয়ে মধ্যস্থতা করা সম্ভব। ন্যাশনাল পিপলস কংগ্রেসের স্থায়ী কমিটির আইনপ্রণেতা অধিবেশনের সভায় আইনটি অনুমোদন করেন।

২০২২ সালের ১ জানুয়ারি থেকে আইনটি সারা দেশে চালু হবে। নতুন আইন সীমান্ত এলাকার সুরক্ষার ক্ষেত্রে নতুন আইন উপযোগী বলে মত, চীনের স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের।

নতুন আইনে বলা হয়েছে, রাষ্ট্র আঞ্চলিক অখণ্ডতা এবং স্থল সীমানা রক্ষা করার জন্য যাবতীয় ব্যবস্থা নেবে। পাশাপাশি আঞ্চলিক সার্বভৌমত্ব এবং স্থল সীমানাকে ক্ষুণ্ণ করে এমন যেকোন কাজ থেকে রক্ষা করবে।

এছাড়াও, সীমান্তের উন্নয়ের কাজে বিশেষ নজর দেবে রাষ্ট্র। সীমান্ত প্রতিরক্ষা শক্তিশালী করা, সামাজিক ও অর্থনৈতিক উন্নয়নের দিকে নজর থাকবে। পাশাপাশি, সেখানকার মানুষের জীবন ও কাজকে সমর্থন জানাবে এবং আরও বেশি করে সমন্বয় গঠনের চেষ্টা করবে।

সীমান্ত বিরোধ নিষ্পত্তির বিষয়ে, আইন বলা হয়েছে, সমতা, পারস্পরিক আস্থা এবং বন্ধুত্বপূর্ণ পরামর্শের নীতি অনুসরণ করে, দীর্ঘদিনের সীমান্ত সমস্যাগুলি যথাযথভাবে সমাধান করার জন্য আলোচনার মাধ্যমে প্রতিবেশী দেশগুলির সঙ্গে মধ্যস্থতা করবে।

প্রসঙ্গত, গত ১৭ মাস ধরে ভারত-চীন সীমান্ত ঘিরে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা অব্যাহত আছে। একাধিক উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকেও কোনও সমাধান হয়নি।

XS
SM
MD
LG