অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

চীনে শীর্ষ বৈঠকে মিয়ানমার জান্তার যোগ দিতে চীনা তদ্বির, বিরোধিতা আসিয়ানের


মিয়ানমারের সামরিক প্রধান সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইং

দক্ষিণ-পূর্ব এশীয় দেশগুলোর কাছে একজন চীনা দূত তদবির করেছেন, যাতে আগামী সপ্তাহে চীনের প্রেসিডেন্ট আয়োজিত একটি আঞ্চলিক শীর্ষ সম্মেলনে মিয়ানমারের সামরিক শাসক যোগ দিতে পারেন। কিন্তু এতে তারা কঠোর বিরোধিতার মুখোমুখি হয়েছেন বলে, বৃহস্পতিবার কূটনৈতিক সূত্রগুলো জানিয়েছে।

১০-দেশীয় অ্যাসোসিয়েশন অফ সাউথইস্ট এশিয়ান নেশনস, বা আসিয়ান-এর সদস্য হিসাবে মিয়ানমারের অবস্থান সমালোচিত হয়েছে, যখন গত ১০ই ফেব্রুয়ারী একটি অভ্যুত্থানের মাধ্যমে দেশটির সামরিক বাহিনী নোবেল পুরষ্কার বিজয়ী অং সান সু চি-এর নির্বাচিত সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত ক’রে, এক রক্তাক্ত বিশৃঙ্খলার সূচনা করে।

মিয়ানমারে সঙ্কটের প্রত্যাবর্তন এবং সেখানে গণতন্ত্রের দমনের কারণে হতাশ, বেশ কিছু আসিয়ান সদস্য, মিয়ানমারের জেনারেলদের আসিয়ান বৈঠক থেকে বাদ দিতে, চাপ প্রয়োগের চেষ্টা করেছে।

গত মাসে একটি অভূতপূর্ব সিদ্ধান্তে, আসিয়ান নেতারা মিয়ানমারের সামরিক প্রধান, সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইংকে একটি আসিয়ান শীর্ষ সম্মেলনে যোগ দিতে বাধা দেন কারণ তিনি অভ্যুত্থানে ক্ষমতাচ্যুত আইন প্রণেতাদের সাথে দেখা করার জন্য একজন আসিয়ান দূতকে অনুমতি দেওয়ার প্রতিশ্রুতি পালনে ব্যর্থ হন।

এর পরিবর্তে, আসিয়ান নেতারা বলেছিলেন , মিয়ানমারের একজন অরাজনৈতিক ব্যক্তিকে উপস্থিত থাকতে বলা উচিত। শেষ পর্যন্ত মিয়ানমারের আর প্রতিনিধিত্ব করা হয়নি।

এই অঞ্চলের চারটি কূটনৈতিক ও রাজনৈতিক সূত্রগুলো জানিয়েছে, ইন্দোনেশিয়া, ব্রুনাই, মালয়েশিয়া এবং সিঙ্গাপুর চায়, ২২শে নভেম্বর চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং আয়োজিত চীন-আসিয়ান বৈঠকে যোগ দিতে, মিন অং হ্লাইংকে নিষিদ্ধ করা হোক।

এ বিষয়ে মন্তব্য দেওয়ার অনুরোধে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রক তাৎক্ষণিকভাবে কোন সাড়া না দিলেও, মঙ্গলবার চীনা মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ান বলেছেন, চীন মিয়ানমারের সব পক্ষকে সংলাপের মাধ্যমে রাজনৈতিক সমাধান করতে সমর্থন করেছে এবং স্থিতিশীলতা ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের প্রচেষ্টায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সাথে কাজ করে যাবে।

মিয়ানমারের সামরিক সরকার তাদের মন্তব্য দেওয়ার অনুরোধে কোনও সাড়া দেয়নি।

XS
SM
MD
LG