অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

তিন বছর পর চীন থেকে দেশে ফিরলেন আটকে থাকা আমেরিকানরা


যুক্তরাষ্ট্র হুয়াওয়েই এর এক শীর্ষ নির্বাহী কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা তুলে নেয়ার পর চীন সিনথিয়া ও ভিক্টর লিউয়ের ওপর ‘এক্সিট ব্যান’ অর্থাৎ ‘বহির্গমন নিষেধাজ্ঞা’ তুলে নিয়ে তাদেরকে মুক্তি দেয়- রয়টার্স

২০১৮ সাল থেকে চীন থেকে দেশে ফেরার ওপর নিষেধাজ্ঞা থাকা দুই আমেরিকান ভাইবোন এই সপ্তাহান্তে যুক্তরাষ্ট্রে ফিরেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের মতে যুক্তরাষ্ট্র হুয়াওয়েই এর এক শীর্ষ নির্বাহী কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলা তুলে নেয়ার পর চীন তাদেরকে মুক্তি দিয়েছে।

কোনও ধরণের অপরাধের অভিযোগ না থাকার পরও সিনথিয়া ও ভিক্টর লিউয়ের ওপর চীন ‘এক্সিট ব্যান’ অর্থাৎ ‘বহির্গমন নিষেধাজ্ঞা’ আরোপ করে যার ফলে তারা চীন ত্যাগ করতে পারেনি। তিন বছর পর তারা আমেরিকায় ফিরলেন। তাদের বাবা একজন সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা এবং পলাতক লিউ চাংমিংকে এক জালিয়াতির অভিযোগে চীন খোঁজ করছিল।

হুয়াইয়ের প্রধান অর্থ কর্মকর্তা মেং ওয়ানঝুর বিরুদ্ধে করা প্রতারণার মামলা যুক্তরাষ্ট্রে তুলে নিয়ে তাকে কানাডা থেকে চীন ফিরে যাবার অনুমতি দেয়ার চুক্তি করার পর দুই আমেরিকানের যুক্তরাষ্ট্রে ফিরে আসার সুযোগ মিলল।

মেং গ্রেফতার হওয়ার পর পরই চীনে যে দুই কানাডিয়ানকে গ্রেফতার করা হয়েছিল, নতুন চুক্তির কয়েক ঘণ্টার মধ্যে তাদেরকে ছেড়ে দেয়া হয় এবং কানাডায় পাঠানো হয়।

এই সব গ্রেপ্তারের ঘটনা পরস্পর সম্পর্কিত সে কথা বেইজিং অস্বীকার করেছে।

সোমবার হোয়াইট হাউজ বলেছে কানাডিয়ানদের মুক্তির বিষয়টি বন্দী বিনিময় নয়, তবে ৯ই সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং এর মধ্যে অনুষ্ঠিত ফোনালাপে বিষয়টি উঠে আসে।

বিচার বিভাগ বলছে মেং এর মামলার বিষয়ে তাদের সিদ্ধান্ত স্বাধীন ভাবে নেয়া হয়েছে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রকের মুখপাত্র বলেন, “রবিবার সিনথিয়া ও ভিক্টরের যুক্তরাষ্ট্রে প্রত্যাবর্তনকে আমরা স্বাগত জানাচ্ছি “। তিনি আরও বলেন সাংহাইতে যুক্তরাষ্ট্রের কনসুলেট তাদেরকে আনার ব্যাপারে সহায়তা করেছে।

“গনপ্রজাতন্ত্র চীনে আইন বহির্ভূতভাবে আটক এবং বহির্গমন নিষেধাজ্ঞা থাকা মুক্তির জন্যে সকল আমেরিকানের পক্ষে আমরা চেষ্টা করবো”

চীন থেকে মুক্তি পাওয়া আমেরিকানদের বিষয়ে হোয়াইট হাউজ মন্তব্য করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে।

সিনথিয়া এবং ভিক্টর লিউ এর মা স্যান্দ্রা হ্যান এখনো অপরাধের অভিযোগে চীনে আটক রয়েছেন।

XS
SM
MD
LG