অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

চীন উইঘুরদের উপর জোরপূর্বক শ্রম চাপিয়ে দিচ্ছে: প্রতিবেদন


পশ্চিম চীনের জিনজিয়াং উইঘুর স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চলের আকসুতে একজন শ্রমিক হুয়াফু ফ্যাশন প্ল্যান্টে সুতার কোটা প্যাকেজিং করছে। মঙ্গলবার, ২০ এপ্রিল, ২০২১।

ওয়াশিংটন – প্রায় "ম্লান" হতে যাওয়া চীনের তুলা শিল্পকে পুনরুদ্ধার ও বিক্রি "ঝুঁকিপূর্ণ” হয়ে ওঠায় শতাধিক আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডের তুলাজাত পণ্যের সরবরাহ নিশ্চিত করতে, জিনজিয়াং অঞ্চলের উইঘুরদের জোরপূর্বক শ্রমে বাধ্য করা হচ্ছে বলে চলতি মাসে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে জানা গেছে। চীনের বেশিরভাগ তুলা মূলত ওই অঞ্চল থেকে আসে।

ইংল্যান্ডের শেফিল্ড হ্যালাম ইউনিভার্সিটির হেলেনা কেনেডি সেন্টার ফর ইন্টারন্যাশনাল জাস্টিস এর লন্ডারিং কটন শীর্ষক প্রতিবেদন অনুযায়ী দেখা গেছে, বিশ্ব বাজারে জিনজিয়াং তুলা প্রায় বিলুপ্ত হতে বসেছে। ফলে চীনের পাঁচটি প্রধান সুতা এবং কাপড় সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান উইঘুর অঞ্চল থেকে তুলা ব্যবহার করছে। ওইসব প্রতিষ্ঠান তাদের অর্ধ-সমাপ্ত পণ্যগুলি আন্তর্জাতিক মধ্যস্থতাকারী নির্মাতাদের কাছে রপ্তানি করে, যারা সুতি পণ্যগুলো তৈরি করে ক’রে যুক্তরাষ্ট্রসহ সারা বিশ্বের আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডগুলিতে প্রেরণ করে।

রিপোর্টে বলা হয়েছে, "এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে, আমরা সম্ভাব্য সাপ্লাই চেইনগুলিকে শনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছি, যারা জিনজিয়াং তুলাকে একশোরও বেশি আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডের সঙ্গে সংযুক্ত করে।"

XS
SM
MD
LG